শুভাবরি ওয়েবডেস্ক , ৪ জানুয়ারি ২০১৯, কলকাতাঃ থিয়েটারকে মানুষের মাঝে নতুন করে উজ্জীবিত করার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার অগ্রণী ভুমিকা পালন করে আসছে । সেই উদ্দ্যেশ্য নিয়েই শুরু হল পশ্চিম তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের  মিনার্ভা নাট্য সংস্কৃতি চর্চা কেন্দ্রের নিবেদিত  ৪র্থ জাতীয় থিয়েটার উৎসব ২০১৯  । রবীন্দ্রসদন প্রেক্ষাগৃহে আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন হয় এই উৎসবের। উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী এবং বিশিষ্ট নাট্যকার  ব্রাত্য বসু, তথ্য সংস্কৃতি এবং পর্যটন দপ্তরের মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, শ্রম, আইন ও বিচার বিভাগের মন্ত্রী মলয় ঘটক , এবং তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের সচিব নমিতা রায় মল্লিক।

 উৎসব সম্পর্কে  ইন্দ্রনীল সেন বলেন, “ সাতদিনের এই উৎসবে   বিনামূল্যে সমস্ত নাটক দেখা যাবে। মোট ২২ টির মধ্যে ৯ টি পশ্চিমবঙ্গের এবং ১৩ টি ভারতবর্ষের বাকী রাজ্যের দল নিজেদের অভিনয় মঞ্চস্থ  করতে পারবেন”। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের প্রশংসা করে মন্ত্রী বলেন, “ তাঁর একান্ত প্রচেষ্টায়ে আজ বাংলার শিল্প সংস্কৃতি জাতীয় এবং বিশ্বের দরবারে প্রাথম  সারিতে জায়গা করে নিয়েছে। বর্তমানে জেলার সমস্ত নাট্যদল ক্রমে ক্রমে তাদের শিল্পকে মঞ্চস্থ করার সুযোগ  পাচ্ছেন”। তিনি ঘোষণা করেন “ এবার থেকে শনি, রবি এবং বাকী ছুটির দিনগুলিতেও পশ্চিমবঙ্গ তথ্যসংস্কৃতি দপ্তরের অধীনে যে মঞ্চ গুলি আছে তাতে নাটক মঞ্চস্থ করা যাবে”।

ব্রাত্য বসু বলেন, “ এই উৎসবে মিনার্ভা থিয়েটার , মধুসুধন মঞ্চ এবং রবীন্দ্র সদন প্রেক্ষাগৃহে মোট ১৩ টি ভাষার নাটক দেখা যাবে। আবেদন হিসাবে বিভিন্ন রাজ্য থেকে এসেছিল মোট ১৬৮ টি নাটক ”। মন্ত্রী মলয় ঘটক সমস্ত প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানান এবং এই প্রচেষ্টা যে ভবিষ্যতে মানুষকে যে নাটকের প্রতি আকর্ষণ করবে সেই বিষয়ে তিনি আশাবাদী।

———–প্রতিবেদন এবং ছবি দেবাঞ্জন দাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *