ওয়েবডেস্ক, ১২ জুলাই,২০২০, কলকাতা: রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে সমন্বিতভাবে কেন্দ্রীয় সরকার কোভিড-১৯ মোকাবিলায় বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সংক্রমিতদের দ্রুত শনাক্তকরণ এবং তাঁদের যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করার ফলে সুস্থ হয়ে ওঠার হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টায় ১৯,২৩৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সারা দেশে এ পর্যন্ত ৫,৩৪,৬২০ জন আরোগ্য লাভ করেছেন। সুস্থ হয়ে ওঠার হার বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৬২.৯৩ শতাংশ।

সর্বাত্মক ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে প্রতিদিন বেশি সংখ্যক লোক সুস্থ হয়ে উঠছেন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন সংক্রমিতদের থেকে ২,৪২,৩৬২ জন বেশি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। ২,৯২,২৫৮ জন সংক্রমিত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। দেশে কোভিড চিকিৎসার জন্য স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর উন্নতি ঘটানো হচ্ছে। এই মুর্হুতে কোভিড নির্ধারিত হাসপাতাল ১৩৭০ টি, কোভিড নির্ধারিত স্বাস্থ্যকেন্দ্র ৩০৬২টি এবং কোভিড চিকিৎসাকেন্দ্র ১০৩৩৪টি রয়েছে।

কেন্দ্র এ পর্যন্ত ১ কোটি ২২ লক্ষ ৩৬ হাজার ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামের কিট, ২ কোটি ২৩ লক্ষ ৩৩ হাজার এন৯৫ মাস্ক এবং ২১,৬৮৫টি ভেন্টিলেটর বিভিন্ন রাজ্য, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ও কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠানকে সরবরাহ করেছে।

কোভিড-১৯এর নমুনা পরীক্ষার জন্য সবরকম নিয়মের বাধা দূর করার উদ্যোগ নেওয়ার ফলে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে নমুনা পরীক্ষার পরিমাণ প্রতিদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টায় ২,৮০,১৫১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এরফলে এ পর্যন্ত ১,১৫,৮৭,১৫৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ভারতে প্রতি ১০ লক্ষ জনের মধ্যে ৮৩৯৬.৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

নমুনা পরীক্ষার জন্য পরীক্ষাগার বাড়ানোর উদ্যোগ অব্যাহত। দেশের নানা প্রান্তে সরকারী পরীক্ষাগার ৮৫০টি ও বেসরকারি পরীক্ষাগার ৩৪৪টি ౼অর্থাৎ মোট ১১৯৪টি পরীক্ষাগারে এই মুহূর্তে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এর মধ্যে ৩৮৮টি সরকারী ও ২৩৬টি বেসরকারী পরীক্ষাগারে (মোট ৬২৪ টি) রিয়েল টাইম পিসিআরের মাধ্যমে , ৪২৭টি সরকারি ও ৪৫টি বেসরকারী পরীক্ষাগারে (মোট ৪৭২টি) ট্রুন্যাটের মাধ্যমে এবং ৩৫টি সরকারি ও ৬৩টি বেসরকারী পরীক্ষাগারে (মোট ৯৮টি) সিবিন্যাটের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।

পি আই বি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *