স্বাস্থ্য

“ত্বকেও টিবি রোগ হয়”

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক,১২ মার্চ, কলকাতা: শরীরের একটি বড় অংশকে আমরা বরাবর অবহেলা করে থাকি। চিকিৎসা বিজ্ঞানেও এই অংশটিকে নিয়ে যে খুব বেশি চিন্তাভাবনা বা আলোচনা সভা হয়েছে তার নজিরও নেই।
তবে ক্যালকাটা অ্যাসোসিয়েশন অফ প্রাক্টিসিং প্যাথলজিস্ট এবং ডার্মাটোলজি সোসাইটি অফ ইন্ডিয়ার যৌথ উদ্যোগে আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখলেন ডক্টর শ্রাবস্তী রায়, সভাপতি, ডক্টর শুভ্রা ধর, অর্গানাইজিং সেক্রেটারি এবং ডক্টর জ্যোতি নারায়ান।
ডক্টর শুভ্রা ধর বলেন, ডার্মাটোলজি নিয়ে আমাদের দেশে খুব কমই আলোচনা সভা হয়েছে। তাই আগামী ১৪ এবং ১৬ মার্চ কলকাতার একটি অভিজাত হোটেলে এই ধরনের একটি অনুষ্ঠান করতে পেরে আমাদের গর্ব বোধ হচ্ছে।
তিনজন ডাক্তারের বিশ্লেষণে জানা গেল রোগের বিষয়বস্তু। জানা গেল যে সাধারণ একজিমার চিকিৎসা দিনের-পর-দিন কুরিয়ে যখন কোনো ফল হয়নি। এমন রোগী ডাক্তারের কাছে আসার পরে পরীক্ষার করে জানা গেল, তার চামড়ায় টিবি রোগ ধরেছে। ত্বকেও টিবি রোগ হয়। পরবর্তীকালে টিভির সুচিকিৎসায় সেই রোগীর অসহনীয় একজিমার মতো রোগ থেকে মুক্তি পেয়েছেন।
ডক্টর শ্রাবস্তী রায় বলেন, ত্বকের সমস্যা থেকে শরীরের অন্যান্য রোগের সমস্যা আমাদের সামনে চলে আসে। অনুজ্জ্বল ত্বক থেকে একটি মানুষ অসুস্থ না সুস্থ সেটি ধরা যায় । তাই তাকে বিষয়টি আমাদের গুরুত্বের সঙ্গে মনে রাখা উচিত।

বিশ্ব ঘুম দিবসের প্রাক্কালে



 

 শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ৭ মার্চ, কলকাতা: ঘুম মানব জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। অথচ এই গুরুত্বপূর্ণ দিকটি অধিকাংশ সময়েই অবহেলিত হয় বিভিন্ন কারণে, বিভিন্ন সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে। 
 ১৩ মার্চ বিশ্ব ঘুম দিবস উপলক্ষে কলকাতা প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে ডক্টর সৌরভ দাস, ডক্টর উত্তম আগারওয়াল এবং ডক্টর হাসিব হাসান জানালেন, বর্তমান যুগে ঘুম না হওয়ার জন্য মানবসভ্যতা এক চরম বিপদের মুখে। ডঃ দাস বলেন, বিশ্বের ৪৫ শতাংশ জনসংখ্যা আজ এই নিদ্রাহীনতা রোগের মুখে পড়েছে। তিনি ভালো ঘুম হওয়ার তিনটে বিষয় বলেছেন। সেটা হচ্ছে,  অন্তত ৭ থেকে ৯ ঘন্টা একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের ঘুমের প্রয়োজন হয়। বলেছেন, বিরামহীন নিদ্রার কথা। তিনি আরও বলেন যে গভীর ঘুম শরীরের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।
 ডক্টর উত্তম আগারওয়াল বলেন, নিদ্রা সম্পর্কিত যে কোন রোগকে অবহেলা না করে অতিসত্বর নিদ্রা বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া উচিত।ডক্টর হাসিব হাসান জানালেন, ঘুম শুধুমাত্র মানব শরীরের জন্যই প্রয়োজন নয় এর মাধ্যমে রক্তচাপ এবং হৃদরোগও নিয়ন্ত্রণে আনা যায়।


হাঁটুর ব্যথাকে অবহেলা নয়

শুভাবরি ওয়েবডেক্স 22ফেব্রুয়ারি: নানারকম দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা উপশম করার জন্য চিকিৎসা হ’ল আল্ট্রাসাউন্ড গাইডেড । যা প্রাথমিক পর্যায়ে হাঁটু ব্যথার চিকিত্সার মতো বিভিন্ন ব্যথা জন্য খুব কার্যকর। আল্ট্রাসাউন্ড গাইডেড ব্যথা পদ্ধতির প্রশিক্ষণের জন্য দারাদিয়া পেইন ফাউন্ডেশনের সদস্যরা কলকাতায় একটি “ব্যথার মেডিসিনে ইউএসজি” শীর্ষক একটি কর্মশালার আয়োজন করছে ২২ এবং ২৩ ফেব্রুয়ারি।
ভারত, বাংলাদেশ এবং নেপালের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এই কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন । কীভাবে আল্ট্রাসাউন্ডকে ব্যবহার করে নির্দিষ্ট ব্যথা নির্ণয় করা যায় তা প্রদর্শিত হবে। গবেষণায় দেখা গেছে, মেডিসিন প্রাথমিক পর্যায়ে শুরু হলে অস্টিওআর্থারাইটিস হাঁটু নিরাময় করতে পারে। অস্টিওআর্থারাইটিস হাঁটু একটি সাধারণ রোগ যা বয়স্ক গ্রুপের রোগীদের জীবনমানকে প্রভাবিত করে। অস্টিওআর্থারাইটিসের জন্য বিদ্যমান চিকিৎসা হ’ল প্রথম পর্যায়ে ব্যায়াম এবং medication, পরবর্তী পর্যায়ে হাঁটু প্রতিস্থাপন।

হাঁটুর প্রতিস্থাপন একটি ব্যয়বহুল ব্যাপার এবং ভারতের মতো দেশে বেশিরভাগ সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। বিশেষত পিআরপি থেরাপি অস্টিওআর্থারাইটিসের চিকিৎসার ক্ষেত্রে বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করছে।
আজ উপস্থিত ছিলেন ডা গৌতম দাস, চিন্ময় রায়, ডা দেবজ্যোতি দত্ত, ডা আর গুরুমূর্তি, ডা দিপশ্রী ভট্টাচার্য প্রমুখ।

ধাত্রী মায়েদের সম্মেলন

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, 15 ফেব্রুয়ারি,কলকাতা: যার হাত ধরে পৃথিবীর আলো দেখা, যার মুখের বুলি নিয়ে সারা জীবন বেঁচে থাকা, সেই মায়েদের সন্তান প্রসবের সময় আগেকার দিনে যারা সাহায্য করতেন– ধাত্রীরা, তাদের সর্বভারতীয় সংগঠনের পঞ্চম রাজ্য সম্মেলন হতে চলেছে আগামী ১৪ এবং ১৫ মার্চ ২০২০ সাগর দত্ত হসপিটালে।

আজ কলকাতা প্রেসক্লাবে “সোসাইটি অফ মিডওয়াইবস ইন্ডিয়া” এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সর্বভারতীয় সভাপতি মিতালী অধিকারী, রাজ্য সভাপতি ভারতী ভট্টাচার্য, রাজ্য সম্পাদক শান্তনা কুন্ডু, উপদেষ্টা বন্দনা দাস প্রমুখ।

উল্লেখ করা যেতে পারে এই বিষয়টি নিয়ে সারা পৃথিবী অনেক কর্মসূচির আয়োজন করেছে এ বছর। কারণ এটি ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের ২০০ তম জন্মবর্ষ।
মূলত: ব্যক্তিগতভাবে গর্ভবতী মায়েদের সন্তান প্রসবের আগে থেকে সন্তান প্রসব অবধি এই মিডওয়াইফরা যত্ন নেবেন, এমন চিন্তা ভাবনা থেকেই তারা লড়াই করে চলেছেন। যাতে স্বাভাবিকভাবে সন্তান প্রসবের হার বাড়ে। ভারতবর্ষে সিজারিয়ান জন্মের হার ২৭ শতাংশ যা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্ধারিত ১৫% থেকে অনেক বেশি । অবশ্যই চিন্তার বিষয় পশ্চিমবঙ্গে কিন্তু এর হার ২৩ শতাংশ । তাই স্বাভাবিক পদ্ধতিতে সন্তান প্রসবে গুরুত্ব দেওয়া হোক এমনটাই আজকের দিনের ভাবনা ছিল তাদের বক্তব্য।

হেমাঞ্জলি শুরু হলো কলকাতায়

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 14ফেব্রুয়ারি, কলকাতা :হেমাটোলজি অর্থাৎ রক্তের বিভিন্ন রকম অসুখ ও তার চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে তিন দিনব্যাপী পঞ্চম বাৎসরিক অধিবেশন কুড়ি কুড়ি শুরু হলো কলকাতায়। আয়োজক বেঙ্গল সোসাইটি অফ হেমাটলজি। 14 ই ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয় 16 ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই অধিবেশনে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে বহু চিকিৎসক , রোগী ও তাদের পরিবারের লোক এই আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন। গবেষণাধর্মী বৈজ্ঞানিক আলোচনা ভিত্তিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি এবছরের একটি নতুন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে যার নাম দেওয়া হয়েছে হেমাঞ্জলি। শুধুমাত্র রোগ এবং তার চিকিৎসা সম্পর্কে ধারণা এবং তার ও রোগীর পরিবারের লোকজনের সাথে সম্পর্ক স্থাপন এই আলোচনা সভার অন্যতম উদ্দেশ্য। অধিবেশন বিষয়ে আলোচনা সভায় সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডাক্তার তুফান কান্তি দলুই, ডাক্তার মৈত্রী ভট্টাচার্য, ডাক্তার রাজীব দে, ডাক্তার প্রকাশ কুমার মল্লিক, ডাক্তার প্রান্তর চক্রবর্তী। রক্তাল্পতা , থ্যালাসেমিয়া, হিমোফিলিয়া, আইটিপি, অ্যানিমিয়া সহ রক্তের বিভিন্ন রোগ সম্পর্কে সম্যক ধারণা দেওয়া এই আলোচনা সভার অন্যতম উদ্দেশ্য।

সোসাইটি অফ থেরাপিউটিক নিউরো ইন্টারভেনশন এর চতুর্থ বার্ষিক সম্মেলন

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ৮ফেব্রুয়ারি, কলকাতা: মস্তিষ্কের বিভিন্ন রকম চিকিৎসা সহ সার্জারিকে কম সময়ে সচ্ছলভাবে কিভাবে অত্যাধুনিক যন্ত্রের সাহায্যে করা হচ্ছে তা নিয়ে সোসাইটি অফ থেরাপিউটিক নিউরো ইন্টারভেনশন এর চতুর্থ বার্ষিক সম্মেলন শুরু হল, চলবে ৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।
বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে ডাক্তাররা এই আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন। তারা নিজের নিজের দেশে কিভাবে অতি সহজে সার্জারি করা যায় সেই নিয়ে আলোচনা করেন । ডা. সুকল্যাণ পুরকায়স্থ জানান, ” বর্তমান বিভিন্ন রকম খাদ্যাভাসে জীবনযাপন এর ফলে মানুষের মধ্যে ব্রেন স্ট্রোকের প্রবণতা বেড়ে যাচ্ছে। সেই সমস্ত লক্ষণগুলোকে কিভাবে অতি তাড়াতাড়ি আমরা বুঝতে পারব এবং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে রোগীকে, সেটি আমাদের আলোচনার বিষয়বস্তু।
দেশে-বিদেশে কিভাবে অত্যাধুনিক যন্ত্র দিয়ে কোনো বড় সার্জারিকে অতি সহজে করে ফেলা যাচ্ছে, সেই বিষয়ে বিভিন্ন ডাক্তাররা নিজেদের বক্তব্য রাখছেন।” স্ট্রোকের লক্ষণ হিসাবে ডাক্তার পুরকায়স্থ বলেন, মাথা ব্যাথা, বমি, অজ্ঞান হয়ে যাওয়া – এগুলি স্ট্রোকের অন্যতম কারণ। সুতরাং কোন মানুষের সে যদি এই সমস্ত লক্ষণগুলো ধরা পড়ে তাহলে সময় নষ্ট না করে খুব তাড়াতাড়ি তাদের নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া উচিত। স্ট্রোকের ক্ষেত্রে সময়টা খুব জরুরী।
স্ট্রোকের ফলে মস্তিষ্কে যে রক্ত জমাট বেঁধে যায় নতুন পদ্ধতিতে কিভাবে সেই জমাট বাঁধা রক্তকে আমরা চিকিৎসা করতে পারি এবং রোগী খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে যেতে পারে। অবশ্য এই চিকিৎসার খরচ সামান্য হলেও বেশি, তবে সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন রকম সাহায্য এবং বিভিন্ন রকম স্কিমের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ এই চিকিৎসা খুব অল্প খরচে বর্তমানে করাতে পারছেন। “

শুরু হলো “বাংলা ইন্টারভেনশনাল থেরাপিউটিকস”

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 31 জানুয়ারী: আজ উদ্বোধন হলো ‘বেঙ্গল ইন্টারভেনশনাল থেরাপিউটিকস ২০২০’, চলবে ২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। হৃদপিন্ডের বিভিন্ন অসুখ, সার্জারি প্রভৃতি আবিষ্কার এবং নতুন যন্ত্রপাতি নিয়ে এই আলোচনা সভায় দেশ-বিদেশের নামি ডাক্তাররা উপস্থিত ছিলেন। সব মিলিয়ে প্রায় ৫০০ জন উপস্থিত ছিলেন যার মধ্যে বাংলাদেশ, আমেরিকা , লন্ডন থেকে আসা ডাক্তাররা।
সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডা. রবিন চক্রবর্তী, ডা. আফজালুর রহমান, ডাক্তার সংযোগ কালরা, ডা জন জর্জ প্রমূখ। ডা. চক্রবর্তী বলেন, “বর্তমানে বিভিন্ন রকম জটিল চিকিৎসার নতুন পদ্ধতি এবং অতি সহজ পদ্ধতি এসেছে। এই বছরের আলোচনা সভার থিম হলো হার্টের দেখাশোনার নতুনত্ব এবং অভিনব টেকনোলজি। এই আলোচনার মাধ্যমে নবাগত ডাক্তাররা অভিনব চিকিৎসা পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে পারবেন, সাধারণ মানুষও এই চিকিৎসা পদ্ধতির সম্পর্কে জেনে বেশি করে আশ্বস্ত হতে পারবেন এবং নিজেদের সুরক্ষিত মনে করতে পারবেন।”

ইনফ্লুয়েঞ্জা প্রতিরোধে আরও একধাপ

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ৫ ডিসেম্বর, কলকাতা : ‘ফ্লু’ নামে পরিচিত ইনফ্লুয়েঞ্জা হ’ল একটি ভাইরাল সংক্রমণ যা জ্বর, কাশি, গলা ব্যথা, মাথা ব্যথা, পেশী এবং জয়েন্টে ব্যথা এবং অসুস্থতা দ্বারা চিহ্নিত। জ্বর প্রায়শই খুব বেশি থাকে। সাধারণ সর্দি একটি কম গুরুতর রোগ যেখানে জ্বরে সাধারণত চলমান নাক এবং হালকা মাথা ব্যাথা থাকে।
ছোট বাচ্চাদের মধ্যে শ্বাস কষ্ট, ডিহাইড্রেশন, পরিবর্তিত মানসিক অবস্থা এবং বিরক্তি ভাব এই মারাত্মক রোগের ইঙ্গিত দেয়।

ইনফ্লুয়েঞ্জা বছরের যে কোনও সময় সংঘটিত হতে পারে, তবে এটি সাধারণত বর্ষা মরসুমে এবং শীতকালে কয়েকটি স্থানে দেখা যায়। এই ভাইরাসগুলি শ্বাস নালীর বা নাক, গলা এবং ফুসফুসে সংক্রমণ ঘটায়। ভাইরাসটি সাধারণত আপনার আঙ্গুলের মাধ্যমে মুখ, নাক বা চোখের শ্লৈষ্মিক ঝিল্লিতে শ্বাস সংক্রামিত হয়। মারাত্মক ইনফ্লুয়েঞ্জার ঝুঁকির গ্রুপগুলির মধ্যে রয়েছে ৫ বছরের কম বয়সী শিশু, গর্ভবতী মহিলা, বয়স্ক ব্যক্তি এবং হাঁপানি বা দীর্ঘস্থায়ী হার্ট বা ফুসফুসের রোগ, ডায়াবেটিস এবং এইচআইভি / এইডস আক্রান্ত ব্যক্তিরা। প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ইনফ্লুয়েঞ্জার বার্ষিক আক্রমণ হার ৫-১০% এবং শিশুদের মধ্যে ২০-৩০% অনুমান করা হয়।

“পেডিয়াট্রিক সংক্রামক রোগ একাডেমী” কলকাতা, থেকে আজ এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য এবং পরিসংখ্যান মিডিয়ায় পৌঁছে দিয়েছেন।
এই সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত থেকে যারা সমৃদ্ধ করলেন তাঁরা হলেন, ডা. জয়দীপ চৌধুরী, শিশু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক, কলকাতা শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ডা. প্রভাস প্রসূন গিরি, পেডিয়াট্রিক ইনটেনসিভিস্ট, সহযোগী অধ্যাপক, শিশু বিশেষজ্ঞ, শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট, কলকাতা।ডাক্তারদের পরামর্শ ক্রমে জানা যায়, নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করলে নিশ্চিত ভাবে ফ্লু প্রতিরোধ করা যেতে পারে।

১) অসুস্থ থাকাকালীন অন্যদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন। ২) অসুস্থ থাকাকালীন বাড়িতে থাকুন। ৩) মুখ এবং নাকটি ঢেকে রাখুন । ৪) সবসময় আপনার হাত পরিষ্কার রাখুন। ৫) নাক-চোখ বা মুখের ছোঁয়া এড়াবেন, জীবাণুগুলি সংক্রামিত এমন কোনও জিনিস স্পর্শ করলে প্রায়ই জীবাণু ছড়িয়ে পড়ে।
এছাড়া, প্রচুর পরিমাণে ঘুমোবেন, শারীরিকভাবে সক্রিয় থাকুন, প্রচুর পরিমাণে জল পান করুন।

অটোলজি সোসাইটির ২৮ তম বার্ষিক আলোচনা সভা

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,7নভেম্বর,কলকাতা: অটোলজি সোসাইটি অফ ইন্ডিয়ার ২৮ তম বার্ষিক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হতে চলেছে আগামী ১৫-১৭ নভেম্বর। আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান সংগঠনের কার্যকরি সম্পাদক ডা.দৈপায়ন মুখার্জী। তিনি বলেন, এই আলোচনা সভায় দশ বিদেশের প্রায় ১৫০০ ই এন টি বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা উপস্থিত থাকবেন। ১৫ তারিখে দুপুর ২.৩০ মিঃ বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টার, নিউটাউনে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন কলকাতার মহানাগরিক ফিরহাদ হাকিম এবং মন্ত্রী শশী পাঁজা।
এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডা. উৎপল জানা, ডা.তরুন পালিত প্রমূখ।

ওষুধ থেকে লিভার খারাপ হতে পারে

Abortion is Healthcare



শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ২২অক্টোবর, কলকাতা: সঠিকভাবে গর্ভপাতের প্রক্রিয়া যাতে নিরাপদ ভাবে করা হয় সেই বিষয়ে সচেতনতার জন্য আজ কলকাতা প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে ‘ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া’। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা শাখার ম্যানেজার সুপ্রতিম মজুমদার, ডা. চ্যাটার্জি সহ অন্যান্য বিশেষজ্ঞ ও ডাক্তারবাবুরা।
তাদের কথায় সারাবিশ্বে বর্তমানে ৪৫% গর্ভপাত নিরাপদ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করা হয় না, এই নিরাত্তাহীন গর্ভপাতের ফলে ১৩ শতাংশ মানুষের মৃত্যু ঘটে। ভারতে ১৫.৬ মিলিয়ন গর্ভপাত হয় প্রতিবছর। এর বেশিরভাগই নিরাপদ ভাবে গর্ভপাত করানো হয় না।
ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া বহু বছর ধরে নিরাপদ গর্ভপাত এবং ফ্যামিলি প্লানিং নিয়ে কাজ করে আসছে প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলে। তাদের বিভিন্ন শাখা বিভিন্ন হসপিটাল-বিভিন্ন এলাকা ভিত্তিক অঞ্চলে সরকারি সংস্থার সাথে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে কাজ করে আসছে। আগামী দিনে তাদের এই প্রচার নিরাপদ গর্ভপাত সম্বন্ধে মানুষের মনে সচেতনতা বৃদ্ধি করবে সেই বিষয়ে আশাবাদী সংস্থার কর্ণধাররা।

হৃদরোগের সচেতনতায় নারায়না

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,17সেপ্টেম্বর,কলকাতা: ওয়াল্ড হার্ট ডে কে সামনে রেখে নারায়ণা হসপিটাল, হাওড়া, এক সাংবাদিক সম্মেলনে তাদের সদ্য সমাপ্ত কিছু হৃদরোগের সফল চিকিৎসার তথ্য তুলে ধরেন। উপস্থিত ছিলেন ডা. ডেভিড রোজারিও, ডা. সুমন মল্লিক এবং নারায়ণের ফেসিলিটি ডিরেক্টর শুভাশিষ ভট্টাচার্য।
তাদের দাবি, বিগত দু’বছর ধরে মানুষের মধ্যে হৃদরোগ জনিত সমস্যা বেড়েই চলেছে । তাদের নতুন চিকিৎসার ফলে হৃদযন্ত্রে ঠিকমত রক্ত সঞ্চালনে রোগী তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠছে।
৭১ বছরের অশোক নাথ কুমার এবং ৬৯ বছরের শচীন্দ্রনাথ রায় দুজনই বিভিন্ন হার্ট সমস্যাজনিত কারণে তাদের হসপিটালে আসেন এবং চিকিৎসা করান। তাদের হৃদপিন্ডে সমস্যা ছিল খুবই জটিল। চিকিৎসার পর তারা খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে ওঠেন। বললেন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. ডেভিড রোজারিও।
শুভাশিস বাবু বলেন, দিনের পর দিন আমাদের জীবন ধারনের বিভিন্ন অচলাবস্থার জন্য হৃদরোগ জনিত অসুখ মানুষের মধ্যে বেড়ে চলছে । তিনি বলেন, ৩৫ বছরের উপরের সমস্ত ব্যক্তিদের বছরে অন্তত একটিবার হৃদপিন্ডের পরীক্ষা করা উচিত।

রোগীর স্বাস্থ্য সচেতনতায় উডল্যান্ড হাসপাতাল

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক ,১৭সেপ্টেম্বর,কলকাতা: প্রত্যেক বছর ১৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সাধারণ মানুষ এবং রোগীদের স্বাস্থ্যজনিত বিভিন্ন চিকিৎসা এবং সচেতনতা বৃদ্ধিতে বিভিন্ন অনুষ্ঠান করে। এ বছর তাদের থিম হলো Patient Safety : A Global Health Priority এবং যে স্লোগানটি রয়েছে তা হলো রোগীদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা নিয়ে প্রচার করা।
উডল্যান্ড হাসপাতাল একটি আলোচনা সভা আয়োজন করে যার বিষয়বস্তু: কিভাবে রোগী এবং সাধারন মানুষদের চিকিৎসাজনিত বিভিন্ন বিষয় এবং সচেতনতা নিয়ে কাজ করা যায়। হসপিটালের কর্মকর্তা ডা. রুপালি বসু সমস্ত অনুষ্ঠানটিকে পর্যালোচনা করে মানুষের স্বাস্থ্য ও রোগীদের স্বাস্থ্য সচেতনতা নিয়ে বিভিন্ন পরামর্শ দেন।

HISICON 2019

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ১৩সেপ্টেম্বর, কলকাতাঃ চিকিৎসা বিজ্ঞান যত উন্নত হয়েছে পরিবেশেও ধীরে ধীরে বেড়ে চলেছে অনেক রোগ। বর্তমান যুগে চিকিৎসাবিজ্ঞানে হয়ে চলেছে নতুন নতুন আবিষ্কার , এই আবিষ্কার এবং নতুন চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে কলকাতায় শুরু হলো HISICON 2019 আলোচনা সভা ।
ক্লিনিক্যাল মাইক্রোবায়োলজিস্ট, ক্লিনিশিয়ানস, নার্সিং স্টাফ, চিকিৎসা বিজ্ঞানের ছাত্র ছাত্রী সহ বহু মানুষ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যোগদান করেছেন এই আলোচনা সভায়। জীবাণু- তার কারণ এবং পরিবেশ ও শরীরকে জীবাণুমুক্ত করার যে প্রক্রিয়া এবং তাতে ব্যবহৃত নতুন নতুন ঔষধ এবং চিকিৎসার ব্যাপারে আলোচনা হবে এই তিন দিনের আলোচনা সভায় । যেখানে দেশ এবং বিদেশী বিভিন্ন ডাক্তারবাবুরা উপস্থিত থাকবেন।


আজ এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান পদ্মশ্রী পুরস্কার প্রাপ্ত প্রফেসর ডাক্তার সন্দীপ গুলেরিয়া , সংস্থার সভাপতি আরতি কপিল, ডাক্তার অনুরাধা আগারওয়াল, সম্পাদক ডাক্তার ভাস্কর নারায়ন চৌধুরী , সিএস ঘোষ , প্রমূখ। উপস্থিত ডাক্তারদের কথায় একথা স্পষ্ট যে রোগের জীবাণু দ্রুততার সাথে আমাদের সাধারণ জনজীবনে ছড়িয়ে পড়ে এবং তা ক্রমেই বাড়তে থাকে এর জন্য আমাদের সচেতনতার প্রয়োজন ও সঠিক রোগ নিরাময়ও প্রয়োজন।

কিডনি নিয়ে সচেতনতায় নারায়ন হাসপাতাল

শুভরাত্রি ওয়েবডেস্ক, ২০আগস্ট, কলকাতা: কিডনি প্রতিস্থাপন নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে নারায়ান সুপার স্পেশালিটি হসপিটাল, হাওড়া আজ এক সাংবাদিক সম্মেলন করে। সম্মেলনে ৩ ও ২৮ শে জুলাই পরপর দুটি সফল কিডনি প্রতিস্থাপন নিয়ে আলোচনা করা হয় এবং তার সাথে কিডনির বিভিন্ন সমস্যা এবং তার প্রতিকার নিয়ে আলোচনা হয়। উপস্থিত ডাক্তার বিশময় কুমার বলেন,” কিডনির সমস্যার সর্বশেষ চিকিৎসা হলো প্রতিস্থাপন। সমীক্ষা করে দেখা গেছে ৭ লাখ মানুষ এই কিডনির সমস্যার জন্য মারা যান। কিডনি দানের জন্য আমাদের সচেতন হতে হবে এবং কিডনির রোগের বিষয় আমাদের জানতে হবে। মূলত সুগার, প্রেসার কিডনির সমস্যার জন্য দায়ী। এছাড়া দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন কার্যকলাপ এর অন্যতম”। ডাক্তার অভয় কুমার বলেন,” যদি কোন পরিবারের কোন সদস্য মারা যান সে ক্ষেত্রে তাদের কিডনি দানের কথা বোঝাতে হবে। এর জন্য সচেতনতা আমাদের অত্যন্ত প্রয়োজন”। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ডাক্তার শর্মিলা ঠুকরাল এবং শুভাশিস ভট্টাচার্য।

দুরে থাক ওবেসিটি

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, 14 জুন ,কলকাতা :

কার্বোহাইড্রেড আর প্রোটিনকে নিয়ন্ত্রনে খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলতে পারলেই  ওবেসিটি থেকে মুক্তি। প্রেস ক্লাবে এক সাবাদিক সন্মেলনে বেরিয়েট্রিক সার্জেন ডা. সুমিত তলোয়ার কথা বলছিলেন। মনিপাল হাসপাতালের সনামধন্য এই শল্য চিকিৎসক আজ সাথে  এনেছিলেন  বেরিয়েট্রিক অপারেশন হওয়া দুই রোগীকে। ৪৯ বছরের সোমনাথ বাবু বললেন, ১৫৪.৮০০ গ্রাম ওজন থেকে  এখন ওজন হয়েছে ৯৮ কেজি। নিয়মিত কিছু খাদ্য গ্রহনে এখন  অনেক ভালো আছি।

কলকাতা মেট্রো স্টেশন ” শহিদ ক্ষুদিরাম ” এরকাছে কামালগাজিতে রয়েছে মনিপাল হাসপাতালের একটি ইউনিট :  UNUS Diagnostic Centre, Moonlit Height,605। তাই ক্রমশ: মোটা যারা হয়ে যাচ্ছে, তারা  নিশ্চিত থাকতে পারেন।

AMRICON 19 

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 8জুন ,কলকাতা :

ঘরের বাইরে হোক বা ভেতরে মানুষের রোগ নিয়ে, যদি আলোচনা হয় তাহলে যে রোগটির নাম বার বার উঠে আসে তা হলো “হৃদরোগ”, চলতি ভাষায় বলে থাকি হার্টের সমস্যা। বলা হয় অনেক ওষুধের ব্যাপার ।

হৃদরোগের  চিকিৎসার বিভিন্ন ধরন এবং নতুন চিকিৎসার যন্ত্রপাতি সম্পর্কে একটি বার্ষিক কনফারেন্সের আয়োজন করে AMRI হাসপাতালের Cardiology বিভাগ। আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান ডা. পি কে হাজরা। তিনি বলেন , বর্তমানে AMRI হৃদরোগ চিকিৎসার বিভিন্ন দিক ও নিত্য নতুন প্রযুক্তির দ্বারা চিকিৎসা করছে। মধুমেহ এবং কলেস্টোরেল এর নতুন ওষুধ বাজারে আসছে । আমাদের লক্ষ্য পশ্চিমবঙ্গের মানুষ যাতে হৃদরোগের চিকিৎসার জন্য অন্য রাজ্যে না যান। বর্তমানে AMRI হসপিটাল হৃদরোগ চিকিৎসার নতুন দিক খুলে দিয়েছে।

সারা ভারত থেকে প্রায় ৩৬০ জন ডাক্তার এখানে অংশগ্রহণ করেন। কনফারেন্স চলবে ৮ ও ৯ জুন  দুইদিন । জানা গেছে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের সাথে নবীন ডাক্তারাও উপস্থিত আছেন। সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডা. সুমন্ত চ্যাটার্জী, AMRI হাসপাতালের তরফ থেকে সমীর ঘোষ প্রমুখ।

কণ্ঠ মিলল কণ্ঠে



শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 28মে ,কলকাতা : সিনেমা কখনো আমাদের প্রেরণা, আবার আমরা কখনো সিনেমার বিষয়। এতটাই ঠিকঠাক চলছিল। কিন্তু বিশ্ব নো টোব্যাকো ডের তিন দিন আগে নারায়ন হসপিটাল ,হাওড়া এক মর্মস্পর্শী অনুষ্ঠান করলো সংবাদমধ্যমের সামনে। Laryngectomy Club শুরু করলো Laryngectomy ক্যান্সার রোগীদের জন্য। সমাজের মাঝে নতুন করে রোগীদের চিকিৎসার পর ফিরিয়ে দেওয়া এই সংস্থার মুল উদ্দ্যেশ্য।

সাথে ছিলেন ‘কন্ঠ’ র অন্যতম কারিগর শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় , গলার ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীরা এই হসপিটালে সুস্থ হয়ে জানলেন জীবনমৃত্যূর মধ্যবর্তী এই হসপিটালে সুস্থ্য হয়ে জানলেন জীবনমৃত্যুর মধ্যবর্তী এই সেতুর কথা । ধন্যবাদ জানলেন, ডা হর্ষ ধর,ডা সৌরভ দত্ত, ডা অপূর্ব গর্গ ডাক্তারবাবুদের । এই সাংবাদিক সম্মেলনে মহতি হয়ে উঠেছিল সুস্থ্য রোগী অনন্তকৃষ্ণনন , সমীর বিশ্বাস,অমিয় সামন্ত, অংশুময় ভট্টাচার্য, সমীর আচার্য প্রমুখের রোগমুক্তির পরবর্তী কণ্ঠস্বরে ।

ক্যানসারকে ফেলুন ছুঁড়ে
তামাক রাখুন দুরে

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,27মে,কলকাতা: তামাক জাত দ্রব্য যে স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর তা আমরা জানি। এছাড়াও সিগারেট, গুটখা ,পানমশলার প্যাকেটেও লেখা থাকে, তবুও আমরা খাই। বিশ্বজুড়ে 1.2 মিলিয়ন ফুসফুসের ক্যান্সার ধরা পড়ছে প্রতি বছর। তার মধ্যে 90% ধুমপান জনিত কারণ । ওয়াল্ড নো টোব্যাকো ডে’র (31 মে) প্রাক-কালে এমনই কিছু তথ্য দিলেন অধ্যাপক ডা. কৌশিক চ্যাটার্জি । তিনি বলেন, 1987 সালে তামাকের ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে ওয়ালড হেল্থ অর্গানাইজেশন একটি রেসলিউশান প্রবর্তন করেন । 1988 সাল থেকে প্রতিবছর 31মে পালন করা হয় World no Tobacco Day। এবারের বিষয় Tobacco and Lung Healh।
আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে ডা. কৌশিক চ্যাটার্জি বলেন, ‘বিশেষত তামাক আমরা কতটা সেবন করছি তার ওপরই নির্ভর করছে আমাদের কতটা ক্ষতি হচ্ছে। সাধারণত: আমাদের শারীরিক কোনো সমস্যা হলে আমরা প্রথমেই ডাক্তারের কাছে যাই না। কিন্তু সেই সমস্যাকে দিনের পর দিনে পুষে রাখলে তা বড় আকার ধারণ করে। সেই সময়ে ডাক্তারের কাছে গেলে অনেক দেরি হয়ে যেতে পারে । বর্তমান যুগে ক্যান্সার 60% সেরে যায়। “
তিনি আরও বলেন, ‘এখনকার দিনে অপরিণত বয়সে তামাক জাত দ্রব্য খাওয়ার প্রবণতা লক্ষ্য করার মত । পুরুষদের সাথে সাথে মহিলারাও ধূমপানের প্রতি অশক্ত হচ্ছেন। যা চিকিৎসকদের কপালে চিন্তার ভাজ ফেলছে। তবে, তামাকজাত দ্রব্য ত্যাগ করার জন্য প্রথমেই একটি নির্দিষ্ট দিন ঠিক করে নিতে হবে। ধীরে ধীরে ধূমপানের প্রবণতাকে কমাতে হবে। ধুমপানকে দুরে রাখবার বাজারজাত ক্যান্ডিগুলিও কাজ লাগনো যেতে পারে “।

জনমানসে তামাকজাত দ্রব্যের ক্ষতিকারক দিকের প্রতি সচেতনতা বাড়ানোই তার লক্ষ্য ।

ই সি জি নিয়ে সচেতনতা

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 25 মে,কলকাতা: হৃদস্পন্দনের মাত্রা এবং হৃদরোগ সংক্রান্ত কোনো সমস্যা নিয়ে ডাক্তারবাবুদের কাছে গেলেই প্রথমেই তারা ই সি জি করার পরামর্শ দেন। সমীক্ষা বলছে, আমেরিকাতে প্রায় কুড়ি লক্ষ মানুষ হঠাৎ কার্ডিয়াক অরিথমিয়ার শিকার হন প্রতি বছর।
সেই ই সি জি নিয়ে সচেতনতা বাড়তে 24 মে থেকে 26 মে কলকাতার একটি পাঁচতারা হোটেলে বার্ষিক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। আয়োজক ইন্ডিয়ান সোসাইটি অফ ইলেক্ট্রকার্ডিওলজি । সংস্থার সম্পাদক ডা. রবিন চক্রবর্তী বলেন, ‘ ই সি জি হল হৃদ রোগীদের জন্য একটি প্রচলিত পরীক্ষা। এর ফলে হার্ট অ্যাটার্ক, হৃদযন্ত্রের সমস্যা বোঝা যায়, ফলে ডাক্তারা সঠিক চিকিৎসা করতে পারেন।’
সভাপতি ডা. জয়প্রকাশ এস বলেন, ‘ ঠিক সময়ে যদি পরীক্ষা করে রোগ ধরা পরে, সেই ক্ষেত্রে সুচিকিৎসা সম্ভব । তাই, ই সি জি নিয়ে আমাদের সচেতনতা প্রয়োজন, মানুষের মধ্যে এই নিয়ে যা ভুল ভ্রান্তি আছে তা দুর করা দরকার। কিন্তু বর্তমানে ই সি জি র পরীক্ষা ধীরে ধীরে কমে আসছে। ‘
আলোচনা সভায় প্রায় 550 জন ডাক্তার এবং 100 জন নার্স, প্যারামেডিকাল স্টাফ অংশ নিয়েছেন বলে জানা গেছে। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ডা. আশিস নাবার , ডা. এস বি গুপ্ত সহ প্রমুখ।

সচেতনতা বৃদ্ধি

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক : গত 8 মার্চ বিশ্ব নারী দিবসে কলকাতার তাম্র ভবনে নারীদের ক্ষেত্রে ক্যান্সার নিয়ে এক আলোচনা চক্রের আয়োজন করেছিল ডা: আরতি ব্যানার্জি মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন । উপস্থিত ছিলেন অনকোলজিস্ট ডা: অয়ন বসু, ডায়াটিশিয়ান অনিন্দিতা মুখার্জি এবং ফাউন্ডেশনের সম্পাদক সুপ্রিয় ব্যানার্জি । আলোচনায় ক্যান্সারের কারণ, লক্ষণ, পরীক্ষা ও প্রতিকার নিয়ে আলোচনা হয়।

ডা: অয়ন বসু বলেন,” আমরা সবাই, বিশেষত মহিলারা এখন শরীর সচেতন অতএব তারা যদি প্রতি 6 মাস অন্তর মেমোগ্রাফি করান বা ক্যান্সারের বিভিন্ন পরীক্ষা করান। সেক্ষেত্রে রোগ জটিল হওয়ার সম্ভবনা কমে আসবে । সঠিক সময়ে যদি ক্যান্সার ধরা পরে তাহলে তার চিকিৎসা সম্ভব । বর্তমান সময়ে পুরুষদের থেকে মহিলাদের মধ্যে ধূমপানের প্রবণতা বেশী দেখা যাচ্ছে। ফলে মহিলাদের ক্ষেত্রে ফুসফুসের ক্যান্সারের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। এতে গর্ভাবস্থায়ও বিভিন্ন শারীরিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।”

উপস্থিত ডায়াটিশিয়ান অনিন্দিতা মুখার্জি খাদ্যাভ্যাস প্রসঙ্গে বলেন, ” আদা ,রসুন, গাজরের রস , কাঁচা হলুদ যদি প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় রাখা যায় তাহলে ক্যান্সারকে কিছুটা দুরে রাখা যাবে। কারণ, এগুলি আন্টি-ক্যান্সার হিসাবে প্রতিষ্ঠিত । এছাড়া কম তেলমশলা যুক্ত খাবার, চিনির বদলে মধু বা বাতাসা, রান্না জন্য একটু দামি তেল।” তিনি আরও বলেন, প্রতিদিন নিজের খাদ্য তালিকাতে যদি একটি করে ফল রাখা যায় সেক্ষেত্রে অনেক উপকার পাওয়া যাবে। তার কথায় সকলের প্রাত:রাশ একটু বেশী পরিমানে করা উচিত।
ফাউন্ডেশনের সম্পাদক সুপ্রিয় বাবু বলেন, “আমরা ক্যান্সারের ওপর অনেকদিন ধরেই কাজ করছি এবং আগামী দিনেও আমরা বিভিন্ন কর্রপোরেট সমাজে এটির প্রচার করবো।”

সংকল্প দিবসে ডাক্তাররা

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,13 এপ্রিল,কলকাতা: Bengal Ayush Medical Association আজ এক সাবাদিক সন্মেলনে আই এম এর রাজ্য সভাপতি ডা. নির্মল মাঝির এবং আই এম এর সর্বভারতীয় সভাপতি ডা. শান্তনু সেনের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা করে। সংগঠনের সাধারন সম্পাদক ডা. শম্পা দাস বলেন, হোমিওপ্যাথি ডাক্তারদের সন্মন্ধে উচু পদে থাকা ব্যাক্তিরা ঘৃন্য মন্তব্য করেছেন। তিনি আরও বলেন, সংগঠন দশ দফা দাবি নিয়ে লড়াই করছে। কিন্তু সরকার এগুলোর সমাধান করতে উদ্যোগী হচ্ছে না। এই আয়ুষ ডাক্তারদের স্থায়ী পদে নিয়োগের দাবি জানান তিনি। এর সাথে অবসরকালীন জটিলতার দ্রুত সমাধান ও জরুরী। উল্লেখযোগ্যভাবে এই প্রতিবাদী ডাক্তারদের পাশেহাজির ছিলেন সংগীতঞ্জ ডা. সুজাতা ভট্টাচার্য্য। এছাড়াও ডা. সহিদুল ইসলাম, ডা. কাজি মোহিত, ডা. অসীম সাহু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

https://youtu.be/xEM35FYQ4Mk

WBAP এর বার্ষিক সম্মেলন

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 7এপ্রিল, কলকাতা : WB PEDIACON 2018 এর চুড়ান্ত সাফল্যের পর WEST BENGAL ACADEMY OF PAEDIATRICS আজ এক বার্ষিক সম্মেলনের আয়োজন করেছিল। দেশ বিদেশ থেকে প্রায় 250জন শিশুচিকিৎসক উপস্থিত ছিলেন।
সদ্যজাত এবং অন্যান্য শিশুদের চিকিত্সার বিভিন্ন নবনির্মিত দিক নিয়ে আলোচনা হয় এই সম্মেলনে। উপস্থিত ছিলেন WBAP এর সম্পাদক ডা পল্লব চ্যাটার্জি, ডা অরুণ মাঙ্গলিক , ডা জয়দীপ চৌধুরী প্রমুখ।

ডা চ্যাটার্জি বলেন, ” বর্তমানে ভ্যাকসিনেশন নিয়ে সচেতনতা অনেকটাই বেড়েছে। নতুন ধরনের ওষুধ এবং প্রযুক্তিকে পাথেয় করে বর্তমানে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। পক্স এবং পোলিও বর্তমান সময়ে অনেকটাই রোখা সম্ভব হয়েছে।এখন মিসলস এবং রুবেলা কে প্রতিহত করার চেষ্টা চলছে সারা বিশ্ব জুড়ে। বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ফাস্টফুড, হেল্থ ড্রিঙ্ক, সফট ড্রিঙ্ক স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর । খাবারের তালিকায় ঘরের তৈরি খাবার বেশী করে রাখবেন। প্রতিদিন সম্ভব হলে খাদ্যতালিকায়ে ফল অবশ্যই রাখুন।”
ডা মাঙ্গলিক এন্টিবায়োটিক এর প্রভাব নিয়ে আলোচনা করেন। এছাড়া বাচ্চাদের সঠিক সময়ে সঠিক ভ্যাকসিন দেওয়ার কথাও তিনি বলেন।

ডা. জে বি চ্যাটার্জির ১০১ তম জন্মদিনে

শুভাবরি ওয়েবডেক্স, ১৫ ফেব্রুয়ারি, কলকাতাঃ ডা. জে বি চ্যাটার্জির ১০১ তম জন্মদিনে হেমাটোলজিস্টরা তাকে সম্মান জানাতে ১৬-১৭ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টারে মিলিত হচ্ছেন।
এই দুই দিনের সেমিনারে চিকিৎসার বিভিন্ন দিক প্রদর্শন করবেন দেশের প্রায় ৩০০ জন ডাক্তার। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ডাক্তারদের উপস্থিতিতে এই দুই দিন রক্ত সম্পর্কিত বিভিন্ন রোগ সম্বন্ধে জানা যাবে।জানা যাবে অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপনের বিভিন্ন বিষয়। ভয়াবহ থ্যালাসেমিয়া রোগের সম্বন্ধেও থাকবে আলোচনা।
তাই রোগ জর্জর পৃথিবীতে এমন একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন Bengal Society Of Hematology। তবে কেন্দ্রে অবশ্যই থাকছেন ডা. জে বি চ্যাটার্জির। আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান BSH এর ডাক্তারবাবুরা। উপস্থিত ছিলেন ডা. তুফান দলুই, ডা. মৈত্রেয়ী ভট্টাচার্য, ডা. প্রান্তর চক্রবর্তী, ডা. শান্তনু বসু।

সেঁতু বন্ধনের আর এক নাম CLIRNET

শুভাবরি ওয়েবডেক্স, ২ফেব্রুয়ারি কলকাতাঃ ডাক্তার এবং রোগীর সাথে এবং বিভিন্ন ডাক্তারের সাথে মত বিনিময়ের জন্য এবার হাতের কাছে CLIRNET. চার বছর আগে থেকে এর কাজ শুরু হলেও সার্বজনীন ভাবে এই অ্যাপস বাজারে এলো। আজ কলকাতা প্রেস ক্লাবে এই অ্যাপস এর আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন করলেন IMA এর সর্ব ভারতীয় সভাপতি এবং রাজ্যসভার সাংসদ ডঃ শান্তুনু সেন। সাথে ছিলেন IMA এর রাজ্য সভাপতি এবং মন্ত্রী ডঃ নির্মল মাঝি।
সংস্থার স্থাপক সৌরভ কাসেরা বলেন, ডাক্তার রোগীদের জন্য সুবিধা দেবে এই অ্যাপস। তার দাবী গত ২ বছরে প্রায় ৫০০০ টি আলোচনা সম্ভব হয়েছে, ২.৮ মিলিয়ান রোগী ডাক্তারদের মধ্যে। গড় ৬-৮ মিনিটের এই আলোচনায় ৯২% মানুষ এই টেলিযোগাযোকে অসাধারণ বলে অভিহিত করেছেন। ডাঃ সেন আশাপ্রকাশ করেন, “এই নতুন ব্যাবস্থা চিকিৎসাবিজ্ঞানকে আরোও সাবলিল করে তুলবে”। পাশাপাশি চিকিৎসার অন্য একটি প্রকল্প ” আয়ুশ্মান ভারত ” বিষয়টিকে তিনি অসম্পূর্ণ বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন উপযুক্ত আর্থিক পরিকাঠামো ছাড়া এই প্রকল্প সঠিক পথে এগোবে না। তাছাড়া এই প্রকল্পের ফলে শুধু করপোরেট ব্যাবস্থাই লাভবান হবে।
সারাদিনের ব্যাস্ততায় ডাক্তারদের নতুন রোগ ও ওষুধের রাসায়নিক সমিকরণ নিয়ে চচার সময় থাকে না। এই টেলিযোগাযোগের অ্যাপস এর মাধ্যমে ডাক্তারা নিজেদের মধ্যে মতেরও আদান প্রদান করতে পারবেন। তাছাড়া রোগীরা জারা প্রত্যন্ত অঞ্চলে থাকেন জটিল রোগ নিয়ে দেশের যেকোন ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারবেন।

থ্যালাসেমিয়া 

থ্যালাসেমিয়া কি?
থ্যালাসেমিয়া একটি জিন ঘটিত নবংশগত রোগ। মূলতঃ থ্যালাসেমিয়া রোগীর অস্বাভাবিক হিমোগ্লোবিন থাকার জন্য অক্সিজেন গ্রহন করতে পারে না, যেটা এই রোগের জটিলতা। কিন্তু এটা সংক্রমণ বা ছোঁয়াচে রোগ নয়।
থ্যালাসেমিয়া রোগের কারন কি?
যখন কোন একজন থ্যালাসেমিয়া রোগের বাহক আর একজন বাহককে বিয়ে করেন তখনই তাদের সন্তানদের মধ্যে থ্যালাসেমিয়া রোগ আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু থ্যালাসেমিয়া বাহক কোনো অসুখই নয়। থ্যালাসেমিয়া বাহকেরা সম্পূর্ণ সুস্থ ও সুস্বাস্থের আধিকারী হয়।
থ্যালাসেমিয়া রক্ত লক্ষণঃ
ক ) রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে যায়। খ ) বয়স অনুযায়ী বাচ্চার বৃদ্ধি হয় না। গ ) প্লীহার বৃদ্ধি ঘটে, ফলে পেট দেহের তুলনায় বেড়ে যায়ে।
থ্যালাসেমিয়া রক্ত পরীক্ষা কখন করা উচিত ঃ
প্রাক- বিবাহ যে কোন বয়সেই থ্যালাসেমিয়া বাহক রক্ত পরীক্ষা করা যায়। শুধুমাত্র এক বছর বয়সের পূর্বে কোন শিশুর থ্যালাসেমিয়া রক্ত পরীক্ষা মূল্যহীন। এই রক্ত পরীক্ষা বাধ্যতামূলক হওয়া উচিত- ক) বিবাহের সন্ধিক্ষণে খ ) বিবাহের পরবর্তী সন্তানধারণের পূর্বে। তবে সবচেয়ে ভালো ছাত্রাবস্থায়ে এই পরীক্ষা করানো।
থ্যালাসেমিয়া রোগ প্রতিরোধের সহজতম উপায়ঃ
মনে রাখবেন দুজন থ্যালাসেমিয়া বাহকের মধ্যে বিয়ে না হলেই পরবর্তী প্রজন্মকে থ্যালাসেমিয়া মুক্ত রাখা যায়। আর থ্যালাসেমিয়া বাহক নিরধারনের জন্যই প্রয়োজন রক্ত পরীক্ষা।

হার্ট অ্যাটার্ক থেকে মুক্তি ।


৬ ডিসেম্বর ২০১৮, কলকাতা, শুভাবরিঃ ১০০ তম হার্ট কেয়ার কাম্প পূর্ণ করার জন্য ইমামি ফাউন্ডেশন এবং বিশ্ব জাগ্রিতি মিশণ একযোগে আগামী ৮ ডিসেম্বর কলকাতার আনন্দ ধামে একটি স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ক্যাম্পের আয়োজন করেছে। সকাল ১১ নাগাদ এই ক্যাম্প শুরু হবে।  আজ প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেন ইমামি ফাউন্ডেশণ । সংস্থার পক্ষ থেকে বিশিষ্ট হৃদরোগবিশেষজ্ঞ ডাঃ বিমল ছাজ্জের বলেন “ হৃদপিণ্ডের অসুখে বর্তমানে প্রায় প্রতিদিন ৯০০০ মানুষ মারা যান। প্রায় ৮ থেকে ১০ কোটি হৃদরোগী ভারতে আছেন। এখন মানুষের দরকার নিজেদের জীবনযাত্রা পাল্টানো , যেমন তৈলাক্ত খাবার বর্জন , নেশা থেকে নিজেকে মুক্ত রাখা, প্রতিদিন ৩৫ মিনিট হাঁটা। এই সমস্ত কাজ যদি করা হয় তাহলে হার্ট অ্যাটার্ক থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব” ।
উপস্থিত ছিলেন ইমামির তত্ত্বাবধায়ক শ্রী সুশীল কুমার গোয়েঙ্কা । তিনি বলেন “ ২০০৫ সাল থেকে ইমামি ফাউন্ডেশণ হৃদরোগ এবং তার থেকে বাঁচার উপায় নিয়ে কাজ করে চলেছে” । এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অন্যতম মুখপাত্র শ্রী অতুল সিং ।

ত্বকের সচেতনতা শিবির

মানুষের শরীরের সব থেকে বড় অঙ্গ হল ত্বক। মানুষে মানুষে সম্পর্কের ক্ষেত্রেও ত্বকের একটা বড় ভূমিকা আছে। করমর্দনই হোক অথবা আশীর্বাদ কিংবা দীর্ঘ অদর্শনের পরে বন্ধুদের আলিঙ্গন, স্পর্শ তো ত্বকের মাধ্যমেই হয়। আর এই কারনেই ত্বকের বিভিন্ন অসুখ বিসুখ হলে তা যেমন চট করে দেখা যায়, অন্যদিকে নানা জনে নানান কথা জিজ্ঞাসা করায় আক্রান্তের মানসিক কষ্ট দেখা দিতে পারে। আসলে একজিমা বা অ্যাটোপিক ডার্মাটাইটিস, সোরয়াসিস, শ্বেতী সহ নানান ত্বকের সমস্যা বেশিরভাগ সময়েই ক্রনিক হয়ে দাঁড়ায়। স্কিন ডিজিজ নিয়ে বেশিরভাগ মানুষের মনে নানান ভুল ধারণা আছে। আর এই কারনেই ত্বকের ক্রনিক অসুখ থাকলে বিভিন্ন জনের কাছে নানান কুরুচিকর মন্তব্য শুনতে শুনতে রোগী গভীর হতাশায় ডুবে গিয়ে আত্মহননের পথ পর্যন্ত বেছে নিতে পারে। ত্বক সংক্রান্ত নানান ভুল ধারণে ভেঙ্গে দিতে প্রতিবারের মত এবারেও কলা মন্দিরে ইন্ডিয়ান সোসাইটি অফ পেডিয়াট্রিক ডার্মাটোলজির (আইএসপিডি) পক্ষ থেকে এক সচেতনতা শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত দর্শকদের ত্বক সংক্রান্ত নানান জিজ্ঞাসার উত্তর দেবার সঙ্গে সঙ্গে ভুল ধারণা নিয়ে সবিস্তার আলোচন করলেন আইএসপিডির প্রেসিডেন্ট ডা সন্দীপন ধর। ডা রঘুবীর ব্যানার্জি ও ডা রাজীব মালাকারও দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। শ্বেতী বা একজিমা যে ছোঁয়াচে নয় এবং কুষ্ঠর সঙ্গে শ্বেতীর কোনও রকম সম্পর্ক নেই এই বিষয় গুলি সহজে বুঝিয়ে দিলেন ত্বক বিশেষজ্ঞগন। বিশেষ করে শ্বেতী নিয়ে আজকের যুগে শিক্ষিত মানুষেরা এমন আচরন করেন যে চিকিৎসক হিসেবে নিজেদেরই লজ্জা করে, বলছিলেন ডা মালাকার। এই নিয়ে অবিলম্বে সচেতন হবার ডাক দিলেন ত্বক বিশেষজ্ঞদের টিম। একজিমা ও সোরিয়াসিস নামক ত্বকের সমস্যা নিয়ে অনেকেই ভুগছেন। সঠিক চিকিৎসায় এই ক্রনিক অসুখগুলিকে সহজেই নিয়ন্ত্রনে রাখা সম্ভব। তবে ওভার দ্য কাউন্টার স্টেরয়েড মলম ব্যবহারের ব্যাপারে সতর্ক করলেন। এর ফলে সাময়িক ভাবে সমস্যার সমাধান হলেও আখেরে ত্বক অত্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ে। এই ব্যাপারে সচেতনতা গড়ে তুলতে জেনারেল প্র্যাকটিশনার থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ ও মিডিয়াকেও এগিয়ে আসতে অনুরোধ করলেন ডা ধর। ত্বকের অসুখ করলে বিউটি ট্রিটমেন্ট না করে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিৎ বলে জানালেন চিকিৎসকরা।

মিজলস ও রুবেলা ভ্যাকসিনেসন

মিজলস ও রুবেলা নামক ভাইরাস ঘটিত অসুখ  কে রাজ্য থেকে দূরীকরণের জন্য উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার এবং সঙ্গে আছেন ওয়েস্ট বেঙ্গল অ্যাকাডেমি অফ পেডিয়াট্রিক্স এর বিশেষজ্ঞ ডাক্তারবাবুরা ।

প্রেস কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন ডা সুরেশ ঠাকুর, ডা কনীনিকা মিএ , ডা দেবাশিস রায়, ডা অরুণ মাঙ্গলিক,  ডা পল্লব চ্যাটার্জি ও ডা মৌসুমী নন্দী ।