দেশ

বিক্ষোভ প্রদর্শন

ওয়েবডেস্ক, 30সেপ্টেম্বর2020, কলকাতা: উত্তরপ্রদেশের নৃশংস গণ ধর্ষনের দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবীতে এবং শিক্ষিত বেকারদের কর্মসংস্থানের দাবীতে, আজ দুপুর ৩টায় NSUI সম্পাদক রোশন লাল বিট্টুর উপস্থিতিতে সৌরভ প্রসাদের নেতৃত্বে রাজভবন অভিযানে মোদি ও যোগীর কুশ পুতুল দাহ করা হয় এতে পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তি হয় তাতে সৌরভ প্রসাদ সহ দুএক জন ছাত্র নেতা আহত হয় এবং পরে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য হসপিটাল নিয়ে যাওয়া হয় । এবং পুলিশ বেশ কিছু ছাত্র নেতাদের গ্রেপ্তার করে লালবাজারে নিয়ে যায় ।

তৈরি হল স্টাফ অ্যাসোসিয়েশন

১৬ অগাষ্ট, সত্যজিৎ চক্রবর্তী, শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, কলকাতা : BJMTU-র দিল্লি স্থিত কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বৈদ্য দে জানান, সারাদেশের ২২টি রাজ্যে পোস্টঅফিস রয়েছে। এই সমস্ত পোস্ট অফিসের কর্মীদের নিয়ে, তাদের বিভিন্ন দাবি-দাওয়া সরকারের সামনে যাতে পেশ করা যায় সেই কারণে এদের নিয়ে একটি স্টাফ অ্যাসোসিয়েশন গঠন করা হলো। যেহেতু সরকারী নিয়ম অনুসারে পোস্টাল বিভাগে ইউনিয়ন করা যায় না, সেই কারণে পোস্টাল কর্মীদের নিয়ে অ্যাসোসিয়েশন তৈরি করা হলো।

এই সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাধন তালুকদার, জাতীয় কার্যকরী সভাপতি, নীতিশ পাল সর্বভারতীয় সভাপতি, অনিল তেওয়ারি, দিল্লির রাজ্য সভাপতি, মাধবী বিশ্বাস রাজ্য ভাইস প্রেসিডেন্ট, ঋদ্ধিমান বসু, রাজ্যের কার্যকরী সভাপতি।

এই নামকরন সর্বসম্মতিক্রমে স্থির করা হয়েছে বলে জানান সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বৈদ্য দে। সংগঠনের অন্যান্য স্তরে কমিটি গঠন প্রসঙ্গে সর্বভারতীয় সভাপতি নীতিশ পাল বলেন, শীঘ্রই দিল্লিতে একটি কমিটি গঠন করা হবে।

আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার জন্য ২০ লক্ষ কোটি টাকার বিশেষ আর্থিক প্যাকেজের কথা ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ১৩ মে, কলকাতা: প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী গত মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন। করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যাঁরা প্রয়াত হয়েছেন, তাঁদের স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ এর ফলে উদ্ভূত সঙ্কট অপ্রত্যাশিত। এই লড়াইয়ে কেবল আমাদের সুরক্ষিত রাখলেই হবে না, সেই সঙ্গে, আমাদের এগিয়েও যেতে হবে। তিনি আরও বলেন, একবিংশ শতককে ভারতের শতক হিসাবে পরিচিতিদানের জন্য সবচেয়ে জরুরি হ’ল দেশকে আত্মনির্ভর করে তোলা।
তিনি বলেন, আত্মনির্ভর ভারতের ভিত্তি ৫টি স্তম্ভের ওপর দাঁড়িয়ে। এগুলি হ’ল – অর্থনীতি, পরিকাঠামো, একুশ শতকের প্রযুক্তি-ভিত্তিক পরিচালিত ব্যবস্থা, প্রগতিশীল জনসংখ্যার বৈশিষ্ট্য এবং চাহিদা। শ্রী মোদী “আত্মনির্ভর ভারত” গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে বিশেষ অর্থনৈতিক প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেন। এই আর্থিক প্যাকেজ প্রসঙ্গে শ্রী মোদী বলেন, এর আগে কোভিড সঙ্কট মোকাবিলায় সরকার যে প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেছে এবং রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গৃহীত সিদ্ধান্তগুলি সহ বর্তমান প্যাকেজের পরিমাণ ২০ লক্ষ কোটি টাকা। এই বিপুল অর্থ ভারতের জিডিপি-র প্রায় ১০ শতাংশ। তিনি বলেন, “আত্মনির্ভর ভারত” গড়ে তোলার ক্ষেত্রে এই প্যাকেজ প্রয়োজনীয় শক্তি যোগাবে।

সূত্র: প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো।

রাজ্যে প্রায় ৩ লাখ মাস্ক তৈরি হয়েছে

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ৪এপ্রিল, কলকাতা: কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের জাতীয় জীবন জীবিকা মিশনের আওতায় দেশের ২৪টি রাজ্যের ৩৯৯টি জেলার স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলির উদ্যোগে মাস্ক তৈরি শুরু হয়েছে।
অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাডু, পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, ছত্তিশগড়, গুজরাট সহ বিভিন্ন রাজ্যের স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলির মাস্ক তৈরির কাজে যুক্ত । সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ৩ এপ্রিল পর্যন্ত ১৪ হাজার ৫২২টি স্বনির্ভর গোষ্ঠীর প্রায় ৬৬ হাজার সদস্য ১ কোটি ৩২ লক্ষ মাস্ক তৈরি করেছে।

মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের ২৮৪টি স্বনির্ভর গোষ্ঠীর ২ হাজার ১৯০ জন সদস্য গত ৩ এপ্রিল পর্যন্ত ২ লক্ষ ৯১ হাজারেরও বেশি মাস্ক তৈরি করেছে।

আশা কর যাচ্ছে এর ফলে মাস্ক নিয়ে বর্তমানে কালোবাজারি বন্ধ হবে, এবং অনেকে সঠিক মূল্যে মাস্ক পাবেন।

সূত্র: পি আই বি

ডাক জীবন বিমা ও গ্রামীণ ডাক জীবন বিমার প্রিমিয়াম মেটানোর তারিখ বাড়িয়ে ৩০শে এপ্রিল করা হ’ল

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ৩০ মার্চ, কলকাতা: কোভিড-১৯ মহামারী সংক্রান্ত ভীতির প্রেক্ষিতে এবং সারা দেশে সম্পূর্ণ লকডাউন পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে ডাক জীবন বিমা নির্দেশালয় মার্চ মাসের মধ্যে বকেয়া প্রিমিয়াম মেটানোর তারিখ আগামী ৩০শে এপ্রিল, ২০২০ পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে, প্রিমিয়াম মেটানোর এই সময় বৃদ্ধির দরুণ গ্রাহকদের কোনও জরিমানা বা মাশুল দিতে হবে না। নির্দেশালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অত্যাবশ্যক পরিষেবার অঙ্গ হিসাবে যদিও বহু ডাকঘরের স্বাভাবিক কাজকর্ম হচ্ছে, তথাপি ডাক জীবন বিমা এবং গ্রামীণ ডাক জীবন বিমার গ্রাহকরা ডাকঘরগুলিতে তাঁদের প্রিমিয়াম প্রদানে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। তাই, গ্রাহকদের সুবিধার্থে প্রিমিয়াম জমা দেওয়ার সময়সীমা বাড়ানোর এই সিদ্ধান্ত।

এই নির্দেশের ফলে ডাক জীবন বিমার ৫ লক্ষ ৫০ হাজার এবং গ্রামীণ ডাক জীবন বিমার ৭ লক্ষ ৫০ হাজার মিলিয়ে প্রায় ১৩ লক্ষ গ্রাহক উপকৃত হবেন। গত মাসে প্রায় ৪২ লক্ষ পলিসি হোল্ডার তাঁদের প্রিমিয়াম জমা করতে পারলেও চলতি মাসের আজ পর্যন্ত কেবল ২৯ লক্ষ পলিসি হোল্ডার তাঁদের প্রিমিয়াম জমা করতে পেরেছেন। পোর্টালে যে সমস্ত গ্রাহক নথিভুক্ত হয়েছেন, তাঁদেরকে অনলাইনে প্রিমিয়াম মেটানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র:- প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো, নয়াদিল্লি, ৩০ মার্চ, ২০২০

বিরাট ঝুঁকি নিয়ে ব্যাংকের কর্মীরা ব্যাংক চালু রেখেছেন

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ২৪ মার্চ, কলকাতা: আজ সঞ্জয় দাস, Secretary, All India Bank Officers Confederation, WB, তার একান্ত সাক্ষাৎকারে জানালেন, বার বার বলা হচ্ছে ব্যাংকে না এসে ঘরে বসে যথাসম্ভব ATM, Internet , PayTym এর মাধ্যমে লেনদেন করুন। অযথা ব্রাঞ্চে ভীড় করে বাড়াচ্ছেন বিপদ। Currency note জীবাণু ছড়ানোর একটা বিরাট মাধ্যম।


ব্যাংকের ক্যাশিয়ারদের বলা হচ্ছে বার বার sanitizer ব্যবহার করতে। গ্রাহকদেরও বলা হচ্ছে টাকা বাড়িতে নিয়ে গিয়ে একটা নির্দিষ্ট জায়গায় রাখুন। যেখানে সেখানে ফেলে রেখে জীবাণুর বিস্তারে সহায়তা করবেন না। তিনি আরো বলেন, আগামী কয়েকদিন কারেন্সি নোটের ব্যবহার কমাতেই হবে। ব্যাংকের কর্মচারীরা অসাধ্য সাধন করছেন। শুধু এই জাতীয় বিপর্যয় দিনে আপনারা আমাদের পাশে থাকুন, সাথে থাকুন।


দেশের দুস্থ এবং মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সুখবর






শুুুুুুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ১৮ মার্চ, কলকাতা: দেশের দুস্থ এবং মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সুখবর বয়ে নিয়ে এলো ওড়িশা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় । অত্যন্ত কম খরচে ইন্টিগ্রেটেড এম এস সি প্রোগ্রাম, আন্ডারগ্রাজুয়েট কোর্স, এমফিল-পিএইচডি সহ অনেকগুলো বিভাগ একসাথে ২০০৯ সাল থেকে চালু রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে।

আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক হেমরাজ মিনা, নাট্যব্যক্তিত্ব অরিজিৎ রায়, অধ্যাপক সৌরভ গুপ্ত উপস্থিত থেকে জানালেন বিশ্ববিদ্যালয়ের খুটিনাটি বিষয়বস্তু। অধ্যাপক সৌরভ গুপ্ত জানান, ১৪ টি বিভাগে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে ১৬০০ ছাত্র-ছাত্রী শিক্ষা গ্রহণ করছেন। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের মধ্যে রয়েছে বিশাল একটি পাঠাগার। যেখানে ৫০ হাজারের বেশি বই মজুদ রয়েছে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য। তিনি দাবি করেন, তাদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৭৫% অব্দি প্লেসমেন্টের ব্যবস্থা রয়েছে।

অধ্যাপক হেমরাজ মিনা বলেন, কোরাপুট এর নৈসর্গিক পরিবেশে, চারদিকে পাহাড় ঘেরা এই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা গ্রহণের এক আদর্শস্থল উল্লেখ করা যেতে পারে, এটি আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছত্রিশগড় এবং অন্ধ্রপ্রদেশের লাগোয়া হলেও অন্যান্য রাজ্য থেকে ওখানে লেখাপড়া করতে অনেক ছাত্র-ছাত্রী আসেন, তবে বাংলা থেকে ছাত্র-ছাত্রী যোগদানের পরিমাণ অত্যন্ত কম। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তির জন্য আবেদন করা যেতে পারে। যার সময়সীমা ১৬ মার্চ থেকে ১১ এপ্রিল। আবেদনকারী যারা ওবিসি এবং জেনারেল তাদের জন্য ৮০০ টাকা এবং তপশিলি জাতি-উপজাতি ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ৩৫০ টাকা ফি রাখা হয়েছে।
অত্যন্ত কম খরচে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়ার সুযোগ থাকার ফলে বাংলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের এটি একটি গ্রহণযোগ্য বিশ্ববিদ্যালয় হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে।

আমরা “আর্থিক সুরক্ষা বাহিনী”, সকলের ভার নিচ্ছি ……সঞ্জয় দাস


শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক ১৭মার্চ, কলকাতা: করোনার বিষয়ে সরকারের প্রতিবেদনের পরবর্তী নির্দেশনা অবধি অনেক রাজ্য সরকার ও সংস্থা স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, শপিংমল, সিনেমা হল, কমিউনিটি হল বন্ধ করার পরামর্শ দিয়েছে। এমনকি সুপ্রিম কোর্ট করোনার প্রভাবের কারণে তাদের নির্বাচিত তারিখ অনুসারে খুব গুরুত্বপূর্ণ মামলার ই শুনানি করবে। গণ জমায়েতের অনুমতি নেই, গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় স্থান হয় বন্ধ আছে বা তারা নতুন নিয়ম গ্রহণ করেছে যাতে আশেপাশে করোনার বিস্তার না ঘটে।
জনসাধারণের যদি ভবিষ্যতে কোন অনুষ্ঠান থাকে তবে তা স্থগিত করে ঘরে নিরাপদে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এমনকি অনেক শীর্ষস্থানীয় বহুজাতিক সংস্থাগুলি তাদের কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছে।

প্রতিরোধ, রোগের চিকিৎসার চেয়ে বেশী ভাল।
কিন্তু করোনা ভাইরাস সম্পর্কে আরবিআই বলেছে যে ব্যাংকিং পরিষেবা আবশ্যক পরিষেবা। ব্যাংকিং পরিষেবাগুলি ব্যাহত করা উচিত নয়।

এই পর্যায়ে ব্যাধি আক্রান্ত ব্যাক্তিরা নির্ভয়ে কাজ করছে এভাবে ব্যাধি ছড়িয়ে পড়ার মতো ঘটনা ঘটেছে। ব্যাংকগুলিতে প্রচুর ঝুঁকি রয়েছে এবং ব্যাংকাররা বেশি ঝুঁকির মুখোমুখি হয়েছেন। কারণ;
সারাদিনের সবসময়েই তারা মানুষের সাথে যোগাযোগ করছেন,
-সারাক্ষন ই ব্যাংকিং হলে বিশাল সমাবেশ হয়,
-ব্যাঙ্কাররা সর্বদা নোটের মুখোমুখি হয়,
-পুরো দিন ধরে তারা কাউন্টারে নগদ গণনা করে ।
কিন্তু রেলওয়ে, হাসপাতাল, সুরক্ষা বাহিনীর মতো দেশের সবচেয়ে প্রয়োজনীয় পরিষেবার অংশ হিসাবে আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করছি। মার্চ কোয়ার্টার হচ্ছে, যেখানে লক্ষ্য পূরণ ও ঋণ পুনরুদ্ধার সহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ আমরা পুরোদমে করছি ।

যেহেতু কেউ আমাদের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা / ঝুঁকি নিয়ে চিন্তা করবে না সেজন্য আমরা সংগঠন থেকে প্রত্যেক কে নিজ নিজ সুরক্ষা নিতে বলেছি।কারণ প্রত্যেকের আর্থিক সুরক্ষার দায়িত্ব আমাদের।গ্রাহকদের স্বাস্থ্যের যত্ন নিয়েও আমরা চিন্তিত। আমরা মনে করি আমাদের অস্তিত্ব কেবলমাত্র ভালো ব্যালেন্স শীট দিয়েই নির্ধারিত হয়না।আমাদের অস্তিত্ব কাজের মাধ্যমে ভালোবাসা থেকে স্থাপিত হয়। এটি বস্তুবাদী বিশ্ব। তবুও আমরা ফিনান্সিয়াল আর্মি, আমরা পাবলিক সেক্টর ব্যাঙ্কের প্রতি যত্নশীল এবং গর্বিত।
(সঞ্জয় দাস , সর্ব ভারতীয় ব্যাংক অফিসার কনফারেশনের যুগ্ম সম্পাদক )

ধর্মীয় বিভেদ সরিয়ে ফেলতে হবে—ক্বারী ফজলুর রহমান

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 4মার্চ,কলকাতা: বহুত্ববাদের পক্ষে আজ কলকাতা প্রেসক্লাবে ইন্ডিয়ান প্লুরালিজম ফাউন্ডেশনের এক সাংবাদিক সম্মেলনে মাতৃ মন্দির পিস বিল্ডারের সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর বসু বলেন, ঘৃণা এবং অবিশ্বাস থেকে দিল্লির মতো ঘটনা ঘটছে। তিনি যুবকদের সাথে নিয়ে বিশ্বাস অর্জনের জন্য কর্মসূচীর আয়োজন করার কথা বললেন। এই সংগঠনের পক্ষ থেকে এ বছর দোলযাত্রায় শুরু হচ্ছে এই কর্মসূচি। কলকাতার পার্কসার্কাস-তিলজলা থেকে এই কাজ শুরু হচ্ছে এবছর।
রেভ. মার্কিন বলেন, বিভিন্ন কমবয়সীদের মধ্যে কথার পরিপ্রেক্ষিতে মনে হয়েছে যে যুবকেরা এই বিচ্ছিন্নতাবাদী মানুষদের অপছন্দ করছেন।

ক্বারী ফজলুর রহমান বলেন, আমাদের ধর্মীয় বিভেদ সরিয়ে ফেলতে হবে। কোথায় কি হয়েছে, কে তার জন্য দায়ী, এই সব ছেড়ে আসুন আমরা শান্তির পথে যাই। তবে সরকারকে সেই মানুষগুলোকে খুঁজে বার করতেই হবে। যারা দিল্লির ওই ঘটনার জন্য দায়ী। তারা কোথা থেকে আসলেন এবং কারা তাদের নিয়ে আসলেন সেটি সমক্ষে এনে দোষীদের শাস্তি দিতে হবে। আমার জানা মতে দিল্লিতে এখনো প্রায় ৭০০ মানুষের কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। আমি প্রস্তাব দেবো যে হিন্দুদের মন্দিরে মুসলমানরা আমন্ত্রিত হয়ে যাবেন। আবার মসজিদে হিন্দুরা যাবেন আমন্ত্রিত হয়ে। এই ভাবেই একটি সম্প্রীতির পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।
অভি সরকার বলেন, শান্তি হচ্ছে আইন এবং অশান্তি হচ্ছে বেআইনি, সংবিধান সেটাই বলছে। আমাদের দেশে একটি পরিচ্ছন্ন সংবিধান থাকা সত্ত্বেও স্বাধীনতার ৭০ বছর পর আজ আমরা শান্তি কামনার জন্য একটি সাংবাদিক সম্মেলন করছি এটি আমাদের জাতির লজ্জার। আমাদের দেশে হিংসার কোন ঠাই নেই তার প্রমাণ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র কেনার জন্য কোন লাইসেন্স এর প্রয়োজন হয় না। কিন্তু এদেশে অস্ত্র কিনতে হলে লাইসেন্স এর প্রয়োজন হয় ।তাই আমরা এখন থেকেই শান্তি কামনায় পরস্পর পরস্পরের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে নতুন ভারত গড়ার পথে এগিয়ে যাব।


এই সাংবাদিক সম্মেলনের সংযোজক ছিলেন ওয়াইজ আসলাম।

ঘৃণা নয় ভালোবাসা


শুভাবরি ওয়েবডেক্স,29 ফেব্রুয়ারী,কলকাতা: গত ২৫ তারিখ থেকে দিল্লি এবং সারা দেশ যে ভয়ানক ঘটনার সাক্ষী থেকেছে তার থেকে একেবারেই স্বতন্ত্র রাস্তায় এসে যুবক ওয়ারলী রহমানী এক নতুন ধরনের আন্দোলনের রূপরেখা তৈরি করলেন।
আগামীকাল কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী অমিত শাহের আগমনকে ঘিরে সর্বত্র যে উত্তেজনার পারদ চড়েছে, সেই দিনে মৌলবাদী রামলীলা ময়দান থেকে গান্ধীবাদী চিন্তাকে মাথায় নিয়ে অমিত শাহের জন্য তিনটি উপহার নিয়ে এক বিশাল মিছিল বিজেপি অফিসের দিকে যাবে বেলা ১১ টায়। তারা সাথে নিচ্ছেন ১)একটি সুন্দর গোলাপ ফুলের ঝাড়, ২) এক বাক্স মিষ্টি এবং ৩) ভালোবাসা বহনকারী একটি চিঠি।
রহমানী বললেন, এই তিনটি উপহারই কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী অমিত শাহের জন্য মিছিল করে হাজির হব বিজেপি অফিসে। আমাদের মননে থাকবে, তুমি আমাকে ঘৃণা দিচ্ছো, আমি তোমার জন্য ভালোবাসা নিয়ে এসেছি। তিনি দাবি করেন, এই নতুন ধরনের আন্দোলন সারাদেশে একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। কারণ ইতিহাস সাক্ষী, বাংলা আজ যা ভাবে, আজ যা করে, সারাদেশ সেটা কাল করে। তাই ভালোবাসা দিয়েই ঘৃণাকে জয় করার সংকল্প নিয়ে কাল প্রস্তুতি নিচ্ছে এক ঝাঁক গান্ধীবাদী যুবক থেকে বৃদ্ধ ।


আজকের সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক সৌদিয়া শাহিদ, একতা ফাউন্ডেশনের পক্ষে সাব্বির আলী, রফি সিদ্দিকী প্রমুখ।

সদস্য সংখ্যা বাড়ানোর লক্ষ্যে টি ইউ সি সি

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 20ফেব্রুয়ারি,কলকাতা: সংগঠনের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ থেকে ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত ৪০ লক্ষ সদস্য যুক্ত করতে বদ্ধপরিকর ট্রেড ইউনিয়ন কো অর্ডিনেশন সেন্টার সেন্ট্রাল কমিটি।
আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ কথা জানান সাধারণ সম্পাদক এস পি তিওয়ারি। শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি-দাওয়া সহ বর্তমান পরিস্থিতিতে বেসরকারিকরণকে নিয়ে বরাবর সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন তারা । আগামী এক বছর ধরে প্রায় ৪০০ টি মিটিং সারা দেশজুড়ে আয়োজন করবে যার মধ্যে ৪০টি মিটিং হবে পশ্চিমবঙ্গে। তিনি দাবি করেন, বর্তমান সদস্য সংখ্যা প্রায় ১৮ লাখ। পশ্চিমবঙ্গে মিটিং-এর জন্য আসানসোল, শিলিগুড়ি ও কলকাতাকে বেছে নিয়েছেন তারা । তিনি আরও দাবি করেন, কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে তাদের এই কমিটি যুক্ত নয় । অন্যান্যদের মধ্যে সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, নির্মাল্য চক্রবর্তী, নমিতা মন্ডল, রাজিব আলী লস্কর। আগামী ২২ ও ২৩ এপ্রিল সারা ভারত অধিবেশন বসবে দিল্লিতে।

ধর্মঘটে থাকছে না ‘টি ইউ সি সি’

৬ জনুয়ারি,শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, কলকাতা: ৮ জানুয়ারি সারা ভারত ধর্ঘমটে শামিল হচ্ছে না শ্রমিক সংগঠন টি ইউ সি সি। আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এস পি তেওয়ারি এ কথা জানিয়ে বলেন, আমাদের সংগঠন ১ জানুয়ারি থেকে ৭ জানুয়ারি অব্দি দেশব্যাপী প্রতিবাদ সপ্তাহ পালন করছে। এই কর্মসূচিতে তারা প্রধানমন্ত্রীকে শ্রমিক স্বার্থ সম্পর্কিত ১২ দফা দাবি সম্বলিত স্মারক দিচ্ছেন। ইতিমধ্যেই তারা মেমোরেন্ডাম এর কপি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠিয়ে দিয়েছেন বলে দাবি করেন এস পি তেওয়ারি। তিনি আরও দাবি করেন, তাদের এই কর্মসূচি ইতিমধ্যেই দেশের ১৩ টি রাজ্যে পালিত হয়েছে এবং তাদের লক্ষ্যমাত্রা দেশের ১০০ টি জেলাতে এই প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা। সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের অন্যতম নেতৃত্ব রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী।

প্রতিবাদী ছাত্র সংগঠন

শুভরাত্রি ওয়েবডেস্ক,২৩ ডিসেম্বর, কলকাতা: কেন্দ্রীয় সরকার নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আইনে পরিণত হয়েছে। সেই আইনের প্রতিবাদে আজ সাংবাদিক সম্মেলন করে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠনের নেতারা। উপস্থিত ছিলেন অন্যতম উদ্যোক্তা নিয়াজুদ্দিন হোসেন, ইমরান আলি , ওসমান গোনি, ফারুক আহমেদ প্রমুখ ।
রিয়াজুদ্দিন বলেন ,” যে আইনটি তৈরি হয়েছে তা সম্পূর্ণ ত্রুটিযুক্ত” । তিনি এখানে কয়েকটি প্রশ্ন তুলে ধরেন :
ভারতের প্রতিবেশী বাকি দেশ গুলি কে বঞ্চিত করে শুধু মাত্র তিনটি দেশ কেন?
তারা যে শরণার্থী তার প্রমান কি করে করবে ? এই তিনটি দেশ থেকে আগত শরণার্থীরা যারা ভারতের নাগরিকত্ব পেয়েছেন তাদের আবার শরণার্থী করে দেওয়ার পরিকল্পনা নয়তো ?
তিনি বলেন, এই আইনের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক বিক্ষোভ করতে গিয়ে দেশের ছাত্রসমাজ সাধারণ মানুষ ব্যাপকভাবে আক্রান্ত।
উপস্থিত সকলের কথায় একটি একটি কথা বারবার উঠে এসেছিল যে শুধুমাত্র একটি ধর্মকে চিহ্নিত করে তার মানুষদের আক্রান্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের।
তাদের অন্যতম দাবি :
অবিলম্বে কেন্দ্রীয় সরকারকে এই আইন প্রত্যাহার করতে হবে।
সারাদেশে জাতীয় নাগরিক পঞ্জী তালিকা তৈরীর পরিকল্পনা বন্ধ করতে হবে।
শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে গ্রেপ্তার হওয়া সকলকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে এবং সারা দেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলন সহ জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া ও আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশি আক্রমণের জড়িত সকল পুলিশকে বরখাস্ত করতে হবে।
ছাত্রনেতা ওসমান গণি বলেন,” আসামে এনআরসি করতে গিয়ে প্রায় ১৬০০ কোটি টাকা খরচ হয়েছে এবং সারা ভারতে যদি এই প্রক্রিয়া শুরু হয় তাহলে এই বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থার সাথে কিভাবে বিপুল খরচ করা যাবে।

বাংলা নতুন মুখ “জাতীয় বাংলা সম্মেলন”

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,9ডিসেম্বর,কলকাতা: অবশেষে দুই ভাগ হয়ে গেল বাঙালির কথা, বাংলার কথা, বাংলার মুখ হয়ে উঠতে চাওয়া একটি সংগঠন “বাংলা পক্ষ”।
অক্টোবর মাসের শেষ দিকে সংগঠনের ভাঙ্গন সম্পন্ন হলেও আজ কলকাতা প্রেসক্লাবে নতুন একটি সংগঠন তৈরি করে পথ চলা শুরু করল নতুন নাম দিয়ে। “জাতীয় বাংলা সম্মেলন”—- নতুন সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি অনির্বাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলা পক্ষ ছেড়ে আসার কারণ হিসেবে অনেক ছোট বড় সমস্যার কথাই সংবাদমাধ্যমের সামনে তুলে ধরলেন। উল্লেখযোগ্যভাবে তিনি বলেন, ‘বাংলা পক্ষ’ তৈরি হয়েছিল ভূমি সন্তানদের জাতীয়তার কথা বলার জন্য। কিন্তু সময়ের স্রোতে ‘বাংলা পক্ষে’র কিছু নেতৃবৃন্দ তাদের ঘোষিত কর্মসূচি থেকে সরে এসে বাঙালির জাতীয়তার থেকে হিন্দুত্ববাদী বাঙালির স্বপক্ষে প্রচার করাকে অধিক গুরুত্ব দিতে শুরু করেন। স্বভাবতই সংগঠন ভাঙ্গনের মুখে পড়ে যায়।

আজ সংবাদমাধ্যমের সামনে ৪০ টি দাবি বাঙালির পক্ষে, বাংলার পক্ষে নিয়ে তারা চলার কথা অঙ্গীকার করলেন কার্যকরী সভাপতি অনির্বাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, কার্যকরী সহ-সভাপতি তন্নী দাস, কার্যকরী সাধারণ সম্পাদক সিদ্ধব্রত দাস এবং সংগঠনের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সদস্য বৃন্দ।
এদিন সংবাদমাধ্যমের সামনে সংগঠনের কার্যকরী সহ-সভাপতি তন্নী দাস জানালেন, প্যানেল ডিসকাশনের মাধ্যমে বিভিন্ন বিষয়ের উপরে তারা আলোকপাত করবেন, এনআরসি এবং ক্যাবের বিরুদ্ধে জেলাভিত্তিক প্রচার অভিযান করবেন। বিভিন্ন ব্যাংকছ এটিএম পরিষেবায় বাংলার দাবি নিয়ে ডেপুটেশন জমা দেওয়ার কর্মসূচি চলবে। তিনি জানান, ইতিমধ্যে পোস্টমাস্টার জেনারেলের কাছে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে যাতে বাংলার প্রতিটি ডাকঘরে বাংলা ভাষায় পরিষেবা দেওয়া হয়।
এখন দেখার বিষয় ‘বাংলা পক্ষ’ ভেঙে ‘জাতীয় বাংলা সম্মেলন’ তৈরি হলো । এই সংগঠনটি কি ঠিকঠাক ভাবে এগিয়ে যেতে পারবে, নাকি আবারও ভেঙে আরো একটি সংগঠন তৈরি হবে !!

দ্বী-জাতিতত্ত্বের জনক জিন্না ছিলেন না— প্রসুন

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ৯ ডিসেম্বর, কলকাতা: বিভিন্ন গণসংগঠনের ব্যক্তিবর্গের এক সন্মিলিত সাংবাদিক সম্মেলনে আজ কলকাতা প্রেস ক্লাবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল এর সমালোচনা করেন উপস্থিত বক্তাগণ।
জামায়াতে ইসলামী হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সভাপতি মাওলানা আব্দুর রফিক বলেন, ধর্মের ভিত্তিতে, দ্বি-জাতিতত্ত্বের ভিত্তিতে তৈরি এ বিল । এখানে বাংলাদেশ , আফগানিস্তান , পাকিস্তান কে যোগ করা হলেও মায়ানমার এবং শ্রীলংকাকে যোগ করা কেন হলো না? তিনি রাজ্য প্রশাসনকে পরোক্ষভাবে সমালোচনা করে বলেন, সংসদে, আইন সভায় ওয়াক আউট করা বিলকে সমর্থন করার শামিল। ফোরাম ফর ডেমোক্রেসি এন্ড কমিউনাল জমিটি, পশ্চিমবঙ্গ তার পক্ষে আব্দুল আজিজ সাহেব বলেন, মুসলমানদের অবহেলার শিকার হতে হবে এই বিলটি পাস হলে। তিনি আরো বলেন, যদি তৃণমূল সরকার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ সমর্থন করেন তাহলে আগামী দিনে তাঁর প্রতি আমাদের সমর্থন থাকবে না।
অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের সদস্য আবু তালিব রহমান সাহেব বলেন, রাজ্যের শাসক দলের ভূমিকাকে আমি ধন্যবাদ জানাই। তবে এই বিলটি পাস করানোর মাধ্যমে হিন্দু এবং মুসলমান এর মধ্যে একটা বিরাট বিভাজন তৈরি হবে। যদিও নির্বাচন প্রাক্কালে আমরা কোন রাজনৈতিক দলকে সমর্থন করেছিলাম । কিন্তু পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আমাদের এখন চিন্তা করতে হবে কি করা উচিৎ।
সমাজসেবী প্রসূন চৌধুরী বলেন, আজকে একটি কালো দিন। তিনি বিশেষ করে বলেন দ্বী-জাতিতত্ত্বের জনক জিন্না ছিলেন না, দ্বী-জাতিতত্ত্ব শুরু করছেন বর্তমান সরকার। তিনি শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জীকে উল্লেখ করে বলেন তিনি বিভিন্ন সময়ে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে তার বক্তব্য রাখতে বিরত করার চেষ্টা করেছিলেন।

“বিভাজনের রাজনীতি বন্ধ হোক”

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ৯ ডিসেম্বর, কলকাতা: ইউনাইটেড সোস্যালিস্ট পার্টি আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের সমালোচনা করে । “বিভাজনের রাজনীতি বন্ধ হোক” এই শির্ষক সাংবাদিক সম্মেলনে লোক তান্ত্রিক জনতা দলের নেতা দলের পক্ষে অমিতাভ দত্ত বলেন ১৯ লক্ষ মানুষ আসামে নাগরিকত্ব সূচিতে আসতে পারেননি। সেখানে যে ডিটেনশন ক্যাম্প বর্তমানে আছে তাতে তিন হাজার মানুষ থাকতে পারে । অমানবিক ভাবে সরকার সেই ক্যাম্পে ১৯ লক্ষ মানুষকে রাখার পরিকল্পনা নিচ্ছে। তিনি বলেন, বিজেপি বাঙালি বিরোধী কর্মসূচী হাতে নিয়েছে । রাজ্যের শাসক দলকে সমালোচনা করে তিনি বলেন, তারা কখনো সংসদ বয়কট করে, কখনো ভোটদান থেকে বিরত থেকে মোদী সরকারকে সমর্থন করে গেছেন । অপর এক বক্তা প্রবীণ আইনজীবী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, কেন্দ্রের বর্তমান শাসক দল পাকিস্তান সম্বন্ধে মন্তব্য করে থাকেন। চীনের আগ্রাসী ভূমিকায় তারা চীন সম্বন্ধে কোন মন্তব্য করেন না । তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকার সমালোচনা করে বলেন, ২০০৫ সালে মুখ্যমন্ত্রী অনুপ্রবেশের কথা তুলে সংসদে ডেপুটি স্পিকার সামনে কাগজ ছুড়ে মেরেছিলেন। তিনি দাবি করছেন, সংবিধানের ১৩ এবং ১৪ নম্বর ধারা এই সংশোধনী বিল এর ফলে লঙ্ঘিত হবে। নাগরিকত্বের প্রশ্নে মুসলমানদের সরিয়ে রাখা সংবিধানবিরোধী। তিনি রাজারহাটে একটি ডিটেনশন ক্যাম্প এর কথা উল্লেখ করে দাবি করেন যে রাজ্য সরকার যদি এ আর সিকে সমর্থনই না করবেন তাহলে ওই ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে কি উদ্দেশ্যে।

“প্রিয়াঙ্কা হাম সরমিন্দা হ্যায়
তেরা কাতিল জিন্দা হ্যায়।”

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,2 ডিসেম্বর,কলকাতা, লিসা দাস: সোমবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ এই স্লোগানে গর্জে ওঠে প্রেসিডেন্সি চত্বর। প্রিয়াঙ্কার রেড্ডি র ধর্ষণ এবং হত্যার প্রতিবাদে এক ঐক্যবদ্ধ মিছিলের ডাক দেয় কলকাতা প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট ইউনিয়ন (PUSU)। নির্ভয়া কাণ্ডের ভয়াবহ স্মৃতি কে উস্কে দিয়ে ডক্টর প্রিয়াংকা রেড্ডির ধর্ষণ এবং তারপর তাকে নৃশংস ভাবে জীবিত অবস্থায় জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। পুলিশ উদ্ধার করে তার ঝলসানো মৃতদেহ। শুধু প্রিয়াঙ্কা, আসিফা,নির্ভয়ার ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে চলেছে এই দেশে, এই দেশ আমাদের নয়। যে দেশ সকল দেশের সেরা হবার দাবী রাখে সেই দেশেই নারীর কোন নিরাপত্তা নেই। একদিকে সমাজ উন্নত হচ্ছে, ইন্ডিয়া ‘ডিজিটাল ‘ হচ্ছে, কিন্তু সমাজে নারীর অবস্থান উন্নত হচ্ছে নাকি অবনতির পথে এমন প্রশ্ন সমাজের মুখে ছুড়ে দিয়েছে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরাও এই দিন প্রিয়াঙ্কার গণধর্ষণ এবং হত্যার প্রতিবাদে পথে নামে।

তারা চায় নিরাপত্তা প্রত্যেকটা মেয়ের সর্বোপরি প্রত্যেক মানুষের। কেন কোন মেয়ে ধর্ষিত হলে ধর্ষকের উপযুক্ত শাস্তির বদলে সমাজ ধর্ষিতার পোশাক, তার সংস্কৃতি, এমনকি তার খাদ্য গ্রহণ সম্পর্কে প্রশ্ন তোলে। কোন পথে এগোচ্ছে এই দেশ, এই দেশের সমাজ ব্যবস্থা। এতকিছুর পরও শাসক কেন চুপ, উপযুক্ত শাস্তি কেন হয় না মানুষের পোশাকধারী কীটগুলোর। শুধু সেখানেই শেষ নয় তাদের শাস্তির বদলে তাদের দেওয়া হচ্ছে সুরক্ষা। আসল গল্পটা ঠিক কোথায় এই প্রশ্নের উত্তর চায় ছাত্র-ছাত্রীরা। তারা চায় ‘ জাস্টিস ‘ ।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিছিল চলে এসপ্ল্যানেড পর্যন্ত। কে সি দাস মোড়ে পৌঁছে চারিদিকের রাস্তা অবরোধ করে চেঞ্জ সার্কেলে। ছাত্র-ছাত্রীরা তারা সমাজের চোখে ছুড়ে দিতে চায় প্রশ্ন। কিন্তু সত্যিই কি এই সমাজ আয়নায় চোখ রাখতে চায়? রাস্তার দুই ধারে জমা মানুষের উৎসুক চোখ শুধুই দর্শকের ভূমিকায়। সার্কেলের চারিপাশে জমা মানুষের উদ্দেশ্যে সচেতনতা জাগাতে ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের বক্তব্য পেশ করে।

আদিবাসি অধ্যুষিত এলাকার যুবতীদের ডিজিটাল দক্ষতা প্রশিক্ষণ প্রদান





 শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,১৭ অক্টোবর:    দেশের আদিবাসি অধ্যুষিত এলাকায় যুবতীদের ডিজিটাল দক্ষতা প্রশিক্ষণ প্রদানের উদ্দেশে আদিবাসি উন্নয়ন মন্ত্রক, নীতি আয়োগ এবং ফেসবুকের সাহায্যে দ্বিতীয় পর্যায়ের‘গোয়িং অনলাইন অ্যাজ লিডার’ (গোল) অর্থাৎ অনলাইন স্তরে নেতৃত্ব প্রদান কর্মসূচির সূচনা করেছে। এর ফলে আদিবাসি অধ্যুষিত এলাকার মহিলারা গ্রামীণ স্তরে ডিজিটালি দক্ষ হয়ে উঠবে এবং তাদের সম্প্রদায়কে নেতৃত্ব দিতে পারবে। কেন্দ্রীয়  আদিবাসি উন্নয়ন মন্ত্রী শ্রী অর্জুন মুন্ডা নতুন দিল্লীতে বুধবার এই কর্মসূচির সূচনা করেন। এই কর্মসূচির মাধ্যমে আদিবাসি এলাকার যুবতীরা ব্যবসা, ফ্যাশন, শিল্পকলা ক্ষেত্রে ডিজিটালি দক্ষ হয়ে উঠবে। এ বছর মার্চ মাসে প্রথম কর্মসূচিতে যাঁরা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তারাও এখানে প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করবেন। এই পর্যায়ে দেশের আদিবাসি প্রধান জেলাগুলি থেকে ৫ হাজার যুবতীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলে, এই কর্মসূচির মাধ্যমে আদিবাসি মহিলাদের সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করে তোলা সম্ভব হবে। একইসঙ্গে তাঁরা ডিজিটাল ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত প্রশিক্ষণও নিতে পারবেন। ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ, ঝাড়খন্ড, মহারাষ্ট্র থেকে ১২৫ জন যুবতী এই কর্মসূচিতে নাম নথিভূক্ত করেছেন। অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন নীতি আয়োগের মহিলা উদ্যোগপতি ক্ষেত্রের ডাটা ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড অ্যানালিসিস বিভাগের প্রধান উপদেষ্টা শ্রী আন্না রায়, ভারতে ফেসবুকে লিডারশিপ টিমের সদস্য অজিত মোহন সহ অন্যান্য বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি। (সুত্র:পি আই বি)

আমরা হিন্দুদের সাথেই আছি ——মিলিন্দ পারান্ডে

শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ২৫ সেপ্টেম্বর, কলকাতা: আজ বিশ্ব হিন্দু পরিষদের দক্ষিণ প্রান্ত শাখা শাখার এক সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের আন্তর্জাতিক জেনারেল সেক্রেটারি মিলিন্দ পারান্ডে। তিনি সাংবাদিকদের জানান, গত নভেম্বর মাসে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ‘হিতৈষী অভিযান’ অনুষ্ঠিত করতে চলেছে। এবারে তাদের লক্ষ্যমাত্রা ৫১ লক্ষ মানুষের কাছে পৌঁছানো।

এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ তাদের বিভিন্ন প্রজেক্ট এর মাধ্যমে সমাজ সেবা, নারী প্রগতি এবং ত্রাণ কাজে নিয়োজিত রয়েছেন। তিনি আক্ষেপের সঙ্গে বলেন, সম্প্রতি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাধারণ মানুষকে বলেছেন তারা যেন থানায় গিয়ে তাদের নথি গায়েব হয়ে যাওয়ার অভিযোগ দায়ের করেন। এভাবে তারা সম্ভাব্য জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকরন এর সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যকে সমালোচনা করে তিনি বলেন যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর এই ধরনের মন্তব্য কে আমরা নিন্দা করছি। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া কালিয়াচক এবং ধুলাগড় এ হিন্দু ধর্মের মানুষদের উপর অত্যাচারের ঘটনা সার্বজনীন না করার প্রয়াস ও তাদের নজরে এসেছে। পাশাপাশি তিনি বলেন, অতীতে হনুমান জয়ন্তী, সরস্বতী পূজা কে না করতে দেওয়ার জন্য সরকারি আদেশ জারি করা হয়েছিল। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ শুধুমাত্র হিন্দু স্বার্থ রক্ষার জন্যই কাজ করে এসেছে এবং করবে। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন, পৃথিবীর যে প্রান্ত থেকেই হোক না কেন হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ এদেশে আসলে তাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার পক্ষে তারা সওয়াল করবেন। অন্যদিকে মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষ যারা বাংলাদেশ বা মায়ানমার থেকে আসবেন তাদেরকে তারা অনুপ্রবেশকারী বলেই চিহ্নিত করবেন।
এ দিন উপস্থিত ছিলেন ক্ষেত্রীয় সম্পাদক অমিয় সরকার, প্রান্ত সহ অধিকারী চন্দ্রনাথ দাস প্রমুখ।

একজোট হলেন বাস্তুহারা সংগঠনগুলো

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,19সেপ্টেম্বর,কলকাতা: সম্মিলিত কেন্দ্রীয় বাস্তুহারা পরিষদ এবং সহযোগী উদ্বাস্তু সংগঠনগুলোর যৌথ উদ্যোগে ‘নাগরিক পঞ্জি থেকে ভারতীয় নাগরিকের নাগরিকত্ব প্রদান এবং পশ্চিমবঙ্গের নাগরিক পঞ্জি চালু করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে’ এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে। নাগরিক পঞ্জি প্রসঙ্গে সিপিআইএমের বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী বলেন, সারাদেশে এনআরসির নামে এক যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। আজ আসামে যারা এনআরসি চালু করার পক্ষে ছিলেন, তারাই আজ এনআরসি তুলে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করছেন। আসলে এনআরসির মাধ্যমে একটা মুসলিম বিরোধী হাওয়া তোলার চেষ্টা হচ্ছে। তিনি বলেন, আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি যে ১৯৭১ এর পর কোন মুসলমান বাংলাদেশ থেকে এই দেশে আসেনি। জাতীয় নাগরিক পঞ্জিতে ‘ইল্লিগাল মাইগ্রেন্ট’ শব্দটির প্রতিবাদ করে তিনি বলেন এটি অপমানজনক। ২০১৬ সালের সিটিজেনশিপ্ বিলটিকে তিনি একটি প্রতারণা বলে অভিহিত করেছেন। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, গতকাল মুখ্যমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করলেন কিন্তু এনআরসি না করতে দেবার পক্ষে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভার সমস্ত সদস্যরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন সেকথা তিনি একবারের জন্য বললেন না।
তাই এই উদ্বাস্তু সংগঠনগুলো আগামী দিনে পশ্চিম বাংলার প্রতিটি ব্লকে ‘হেল্পিং সেন্টার’ খুলবে। পাশাপাশি এন আর সি চালু করার বিরুদ্ধে তাদের লড়াই জারি থাকবে।

https://youtu.be/jGIyJofOMDA


আজ অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সুকৃতি রঞ্জন বিশ্বাস, কপিলকৃষ্ণ ঠাকুর, শক্তি মণ্ডল, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মধু দত্ত প্রমুখ।

বাঙালি আজ আত্মকেন্দ্রীক

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,17সেপ্টেম্বর,কলকাতা: কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্ত, অসমের নাগরিকপঞ্জি করুন এবং হিন্দি ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে চালু করার প্রতিবাদে আজ ‘শিল্পী সাংস্কৃতিক কর্মী বুদ্ধিজীবী মঞ্চে’র, এক সাংবাদিক সম্মেলনে নাট্যকার বিভাস চক্রবর্তী বলেন, দেশের মধ্যে একমাত্র দক্ষিণ ভারত হিন্দি ভাষাকে জোর করে চাপিয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে সরব হয়েছিলো। তখন কিন্তু বাংলার বুদ্ধিজীবী সমাজ এবং বাঙালিরা চুপ থেকে ছিল। তবে এখন ভাবার সময় এসেছে। আসামে বিদেশি নিশ্চিতকরণের সময়সীমা ছিল ২৪ অগাস্ট ১৯৭১। প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী এবং অল আসাম স্টুডেন্ট ইউনিয়ন এর সাথে এ বিষয়ে চুক্তিও হয়েছিল। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে এই বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি নাগরিক বলে যাদের চিহ্নিত করা হয়েছে তাদের ভবিষ্যৎ কি !! তিনি অত্যন্ত বেদনার সঙ্গে বলেন, আজ বাঙালি কিন্তু বড় বেশি আত্মকেন্দ্রিক হয়ে পড়েছেন।তাই বউবাজারে গৃহহীন মানুষদের পাশে খুব বেশিদিন তারা সঙ্গ দিতে পারছেন না। এদিন অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সুদীপ্ত দশগুপ্ত, বিমল চ্যাটার্জী, প্রতুল চট্টোপাধ্যায়, সুজাত ভদ্র প্রমুখ।

সুর চিকিৎসায় বিশ্ব জয়

বৈশালী দে, কলকাতা,শুভাবরি ওয়েব ডেস্ক, ৩১ অগাষ্ট:
ডঃ সুমন্ত ঠাকুরের সুর চিকিৎসায় সফলতা ও বিশ্ব রেকর্ড গড়ে তোলাকে কেন্দ্র করে আজ কলকাতা প্রেস ক্লাবে এক সাংবাদিক বৈঠক ডাকা হয় ।এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সংগীত শিল্প পূর্না দাস বাউল।


বিশ্ব রেকর্ডে ডঃ সুমন্ত ঠাকুরের নাম নথিভুক্ত হওয়াকে কেন্দ্র করে ইউনিভার্সিটি রেকর্ড ফোরামের তরফে মিঃ সুনীল জোসেফ আজ ডঃ ঠাকুরের হাতে মানপত্র তুলে দেন এবং তাকে সম্মানিত করেন।


ডঃ ঠাকুর মনে করেন, গানের মধ্যে প্রাণ পাওয়া যায়। তাই তার বহুসমালোচিত এই সুরের চিকিৎসা আজ স্বীকৃতি পেলো।
রোগীদের সম্পূর্ণ অজ্ঞান না করে কেবল মাত্র তার অপারেশনের স্থানটি অবশ করে নিয়ে কি করে এই সুর চিকিৎসা করা হয় তা আজকের বৈঠকে তুলে ধরেন ডঃ ঠাকুর।
তিনি জানান, এই ধরণের চিকিৎসা চলাকালীন রোগীরা গান শোনেন গান করেন বা রোগী যদি শিল্পী হন এবং বাদ্যযন্ত্র বাজান এবং তাতে রোগীর রক্তচাপ, হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক ভাবেই নিয়ন্ত্রিত থাকে।


১৯৯৮ সাল থেকে ডঃ ঠাকুরের এই প্রয়াস চলছে, ২০০৭ সালে প্রথম নার্সিংহোমে সুরের প্রচলন শুরু হয় এবং অপারেশন থিয়েটারে বিনা অজ্ঞানে চিকিৎসা ২০১৫ সাল থেকে চলছে। যেক্ষেত্রে অনেক রোগীর মধ্যে ৭৫ জনের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য সফলতা পাওয়া গেছে ।
এছাড়া তিনি আরো জানান, কলকাতা সরকারি হাসপাতালেও সুর চিকিৎসার প্রয়োগ করা হচ্ছে ।

প্রায়ত প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী

শুভাবরী ওয়েবডেক্স,পলাশ পাএ,হুগলী,২৪ আগস্টঃ-প্রায়ত হলেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। আজ বেলা ১২:০৭ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশাস ত্যাগ করেন। গত ৯-ই আগস্ট থেকে ভর্তি ছিলেন দিল্লির AIIMS – এ, তিনি কিডনি সহ শরীরের মাল্টি অরগ্যান বিকল হওয়ার কারনে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। মৃত্যু কালীন অবস্থায় তাঁর বয়স হয়ে ছিলো ৬৭ বছর।

জাতীয় স্বার্থ বিরোধী কেন্দ্রীয় নীতি

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,13আগস্ট,কলকাতা: অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরি বোর্ড কে কর্পোরেটারাইজেশন কোনভাবেই জাতীয় স্বার্থের পক্ষে নয়। আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে ট্রেড ইউনিয়ন কয়ার্ডিনেশন সেন্টারের সাধারণ সম্পাদক এস পি তেওয়ারি এ কথা জানালেন। সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন ১২ তম পরিকল্পনায় ৫৫৬৩ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল ডিফেন্সকে। কিন্তু পরবর্তীকালে বর্তমান এনডিএ সরকার অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরিগুলোকে বেসরকারি হাতে তুলে দিতে একটি খসড়া তৈরি করেছে। তিনি আরো বলেন, এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং এর নেতৃত্বে গ্রুপ অফ মেম্বার্স তৈরি করা হয়েছে। তিনি দাবি করেন এ বিষয়ে তিনি রাজনাথ সিংয়ের সাক্ষাৎ প্রার্থী হতে আবেদন করেছিলেন।

আগামী ২০ অথবা ২১ তারিখ হয়তো তার সাথে দিল্লিতে দেখা করার সুযোগ পাবেন। তিনি সেখানে একটি অল্টারনেটিভ প্রস্তাব নিয়ে যাবেন। এদিন এই সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এন পি ডি পি এফ এর জাতীয় সভাপতি সিয়ারাম, টি ইউ সি সির সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী এবং সতীশ সিং ভাইস প্রেসিডেন্ট। এদিন বক্তারা আগামী ২০ আগস্ট থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর এক মাসের কর্মবিরতির পক্ষেই নিজেদের মত পেশ করেন।

বেসরকারি পথে দেশের সুরক্ষা

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,13 আগস্ট,কলকাতা: দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর কেন্দ্রের এনডিএ সরকার ৪৬ টি পি এস ইউ কে ১০০ দিনের মধ্যে বেসরকারিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন। তার মধ্যে দেশের ৪১ টি Ordinance Factory, যেখানে ৮২ হাজার কর্মী প্রায় ৩০৬৯ টি সামগ্রী তৈরি করে থাকে। এর মধ্যে ৪৫০টি সামগ্রী তৈরি হয় পশ্চিমবঙ্গের চারটি ইউনিটে।

আজ কলকাতা প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলন “ইছাপুর প্রতিরক্ষা শিল্প বাঁচাও কমিটি” তাদের চিন্তা ব্যক্ত করেন । এদিন অল ইন্ডিয়া ডিফেন্স এমপ্লয়ীস ফেডারেশনের জেনারেল সেক্রেটারি দেবজ্যোতি বোস বলেন, কর্পোরেট সেক্টরকে এই বিষয়ে লাইসেন্স দেওয়া হয়ে গিয়েছে। তিনি বলেন ১৪ জুলাই ২০১৯ বেসরকারীকরণের জন্য ভারত সরকার নোটিফিকেশন জারি করেছেন । এর ফলে যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হবে দেশের সুরক্ষা, তেমনি ৮২ হাজার কর্মী কর্মসংস্থান প্রশ্নের মুখে পড়বে। INTUCর ভাইস প্রেসিডেন্ট সুভাস চন্দ্র নাহা, বলেন আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর তারা এক মাসের স্ট্রাইকে যাবেন । এ বিষয়ে আগস্ট মাসের ১ তারিখে তারা ম্যানেজমেন্টকে নোটিশ পাঠিয়েছে। এই স্ট্রাইকে তাদের ৩টি সর্বভারতীয় সংগঠন এবং তার সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করবে । আজকের সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন Ordinance Factory National Mens Union এর GS সুবল রায়, BPMS, Ichapur এর Jt Secretary সঞ্জয় প্রসাদ প্রমুখ।

ঈদের নামাজ

শুভাবরি, 12আগস্ট, কলকাতা: ত্যাগের প্রতিক ঈদ- উল- আজাহ্। আজ কলকাতার রেড রোডে হাজার হাজার মুসলমান পরম শ্রদ্ধার সাথে ঈদের নমাজ পড়লেন। প্রতি বছরের মত ইমাম -ই-ইডেন ক্কারি ফজলুর রহমান সাহেব এই নমাজ পাঠ করালেন। বিশ্লেষন করলেন ঈদ- উল- আজাহ্ র মাহাত্য। উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক ইদ্রিস আলি।

শান্তিবার্তায় ” মোবাইল ই পেপার “

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,3আগস্ট,কলকাতা: আসন্ন ঈদ উল আজাহ তে শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখতে মোবাইল ই পেপার এক সাংবাদিক সন্মেলনের আয়োজন করেছিল। উপস্থিত ছিলেন, মহ: মুমতাজ, ফইজল খান, সওকত আলি সিদ্দিকী, মহ: দাউদ, সাহবাজ আলম, মহ: ইশাক মল্লিক। সঞ্চালনায় : সাব্বির আলি।
বক্তাগন আসন্ন উৎসব নিয়ে সম্প্রীতির বার্তা দিলেন। বাংলার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে আবেদন জানান। দেশে চলতে থাকা হিংসার উল্লেখ করে সওকত আলি বলেন, মুসলমান ভাইয়েরা যেন সংযম বজায় রাখে।

https://youtu.be/dsQ_X8DjrxQ

বাংলাদেশ সংখ্যালঘু প্রায় শূন্য হতে চলেছে

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ৩০ জুলাই, কলকাতা: আজ কলকাতার প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এমনটাই দাবি করলেন বাংলাদেশ উদ্বাস্তু উন্নয়ন সংসদ সংগঠনের সভাপতি বিমল মজুমদার। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন, প্রায় ৫ কোটি ধর্মীয় সংখ্যালঘু বিতারণ করেও বাংলাদেশ বিশ্বে অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পাচ্ছে। পাশাপাশি বাংলাদেশ আর একটি কাজ করে যাচ্ছে। সেটি হল মুসলমানদের ভারতে পাঠিয়ে দেওয়া, যার আনুমানিক সংখ্যা প্রায় দুই কোটি বলে তার দাবি। একইভাবে বাংলাদেশ নাকি মুসলমানদের মায়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমান বানাতে সক্ষম হয়েছে। একটি সাংঘাতিক অভিযোগ এনে তিনি বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে যে সকল মুসলমানরা ভারতে এসেছে তারা হিন্দিও বলতে পারে। তাতে বাংলাদেশি মুসলমানরা হিন্দিভাষী হলেও ভারতবাসীরা আশ্চর্যান্বিত হবেন না। সাংবাদিক সম্মেলনে তার সহযোগী ছিলেন প্রদীপ চৌধুরী। তিনি বলেন যে প্রিয়া সাহা সাম্প্রতিক কালে বাংলাদেশের ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের গায়েব হওয়ার কথা বলেছেন। আরো একটি বিষয, আমেরিকার প্রেসিডেন্টের কাছে প্রিয়া সাহা বলার পর তার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ আনা হয়েছে। আজ বাংলাদেশ উদ্বাস্তু উন্নয়ন সংসদ ভারতবর্ষে এনআরসি কে সমর্থন করেছে। তারা বলেছেন যে এনআরসি হলে অন্ততপক্ষে বাংলাদেশ থেকে অত্যাচারিত হয়ে এদেশে বসবাস করা হিন্দু বাঙ্গালীদের এদেশের নাগরিক করা যেতে পারে। তিনি আরো বলেন, বনগাঁ সীমান্ত থেকে শুরু করে দমদম রেল লাইনের ধারে এবং বিভিন্ন খালপাড় ধারে যে বস্তিগুলো রয়েছে, সেখানে বাংলাদেশ থেকে নির্যাতিত হয়ে চলে আসা সমস্ত হিন্দুদের বসবাস। সরকারের কাছে তাদের অনুরোধ যেন অবিলম্বে তাদের নগরিকত্ব দেওয়া যায়। তারা একই সাথে কয়েকদিন আগে চট্টগ্রামে ইসকনের পক্ষ থেকে ছাত্র ছাত্রীদের পোশাক খাওয়ানো হয়েছে বলে যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধানোর উদ্যোগ নিয়েছিলো তারা তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন এবং প্রিয় সাহা যেভাবে বাংলাদেশের মৌলবাদী নীতির উপর আঘাত করে সমস্ত বিষয়টি আন্তর্জাতিক করার চেষ্টা করেছেন তাকে সমর্থন জানান।

https://youtu.be/4Bbii9_AjJM

SBISA এর ১০০

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ১২ জুলাই, কলকাতা :
যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯২০ সালে । তার পর থেকে ঝড় ঝঞ্জা পেরিয়ে ২০২০ অর্থাৎ আগামী বছর পূর্ণ করতে চলেছে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া স্টাফ এসোসিয়েশন( SBISA ) ১০০ তম বছর।
আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান AISBISA র সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব কুমার বান্দিশ। এই উপলক্ষে কলকাতার প্রাণকেন্দ্র ধর্মতলার কাছেই অজিত সেন ভবনে নবনির্মিত ২০০ আসনের অডিটোরিয়ামের উদ্বোধন হয়। আগামী কাল ১৩ জুলাই দেশপ্রিয় পার্ক থেকে নজরুল মঞ্চ পর্যন্ত শোভাযাত্রার মাধ্যমে বছরব্যাপী অনুষ্ঠানের সূচনা হবে এবং নজরুল মঞ্চে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়েছে। এছাড়া ১৪ জুলাই জেনারেল কাউন্সিল সভা হতে চলেছে। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সভাপতি এস পি বহেরা, সিদ্ধার্থ খান, রাজেশ ত্রিপাঠি, অনিমেষ চ্যাটার্জি প্রমুখ ।
বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে সম্পাদকের বক্তব্য :

https://youtu.be/KSVpxDcITvs

বিস্ফোরক কাফিল

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,8জুলাই, কলকাতা : গোরক্ষপুর হাসপাতালের সাসপেন্ডেড ডাক্তার কাফিল খান বি আর ডি হাসপাতালের মর্মান্তিক শিশু মৃত্যুর জন্যে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথকেই দায়ী করলেন। এক সাংবাদিক সন্মেলনে ” হেল্থ ফর অল” প্রকল্পের প্রচারে এসে কি বললেন শোনা যাক:

https://youtu.be/cxMgvOW1r3s

সংস্কৃতির আলোকে মাহেশ্বরী

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ৩০ জুন,কলকাতা : 

নবীন প্রজন্মকে সফলতা এবং উদ্ভাবনী শিল্পের দিকে এগিয়ে দিতে বৃহত্তর কলকাতা প্রাদেশিক মাহেশ্বরী যুব সংঘ অন্যতম ভূমিকা নিল।

আগামী ৯ থেকে ১১ আগস্ট ব্যাঙ্গালোরে মাহেশ্বরী ডাটামেটিক “কৌন বনেগা সুপারস্টার” এর গ্র্যান্ড ফাইনালে কলকাতাকে প্রতিনিধিত্ব করবেন যারা সেই ১৭ জন প্রতিযোগীকে বেছে নেওয়া হলো । 

সংস্থার সূত্র থেকে জানা গেছে গত ২৩ জুন কলকাতা এবং হাওড়া প্রতিযোগীদের অডিশান নেওয়া হয়েছিল। ছিলেন তেজস গান্ধী, অভিষেক বসু, তনুশ্রী সেনগুপ্তের মত বিশিষ্ট বিচারকরা ।

https://youtu.be/SpjOXbSgBcc

অতিথি হিসাবে ছিলেন মিসেস ইন্ডিয়া ইউনিভার্স শ্রীমতি রুপাল মোহাতা, রাধেশ্যাম ঝাওয়ার, সুরেশ ঝাওয়ার । পূর্বাঞ্চল অখিল মাহেশ্বরী যুব সংগঠনের সহ সভাপতি জানান, “এই প্রতিযোগিতা অনেক প্রতিভা খুঁজে বের করে আনতে পেরেছে। আগামী দিনে তারা যাতে আরোও  প্রতিযোগী  নিজেদের স্বপ্নের দিকে সঠিক ভাবে এগিয়ে যেতে পারে সেই ব্যাপারে সাহায্য করব।”

একক নাচ, গ্রুপ নাচ, গান, মি: মাহেশ্বরী, মিস মাহেশ্বরী, বিভিন্ন ধরনের বাদ্যযন্ত্র এর ওপর হবে জাতীয় স্তরের প্রতিযোগিতা, যা হবে ব্যাঙ্গালোরে।

নির্ভয়ে আসুন কাশ্মীরে

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,8জুন,কলকাতা : কোন রকম প্রচারে কান না দিয়ে ঘুরে আসুন কাশ্মীরে। বর্ডারে গন্ডগোল হলেও তার প্রভাব সেখানকার পর্যটন শিল্পে পড়ে না। আজ কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাবাদিক সন্মেলনে একথা জানান নাজির আহমেদ মীর, চেয়ারম্যান, এসোসিয়েশন অফ কাশ্মীর ট্যুর অপারেটরস্। তিনি দাবি করেন, ট্যুরিষ্টদের মধ্যে মহারাষ্ট্র প্রথম, গুজরাট দ্বিতীয় এবং পশ্চিম বঙ্গ তৃতীয় স্থানে রয়েছে।
উল্লেখ্য, ৬.৫০ লাখ মানুষ কাশ্মীর ভ্রমন করেছেন। এর মধ্যে ২.৫০লাখ এ রাজ্য থেকে। জে এন্ড কে ট্যুরিজমের ট্যুর অফিসার আহশান হক বলেন, এ বছর আমরা আশা করছি যে পশ্চিমবঙ্গের ট্যুরিষ্টের সংখ্যা তিন লাখ অতিক্রম করবে। তাই সুইজারল্যান্ডে ভ্রমনের স্বাদ নিতে নির্ভয়ে চলে আসুন কাশ্মীরে।

নতুন সরকারের কাছে  AMCA 

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 7জুন,কলকাতা : শিক্ষা, কর্মকে নতুনভাবে মানুষের কাছে উপস্থাপনে উদ্দ্যোগী হলেন Asian Marine Conservation Association। 

দীর্ঘ ৩১ বছর  ধরে কোষ্টাল জোন  ম্যানেজমেন্ট নিয়ে   সারা ভারত জুড়ে কাজ করছে তারা । বৈজ্ঞানিক অনুপম ঘোষের দাবি, চাকরির নতুন দিশা খুলে দেবে। সুযোগ রয়েছে গবেষণা করার সুযোগও। তিনি আরও দাবি করেন, ১৯৮৯তে তাদের দেওয়া( কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে ) প্রজেক্ট হয়ত অন্য দেশের কাছে চলে গিয়েছে। কারন অনুরুপ প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করে কোষ্টাল জোনে প্রভূত উন্নতি করেছে শ্রীলঙ্কা ও ফিলিপাইনস।

আমাদের প্রতিনিধির সাথে কথা বললেন  বৈজ্ঞানিক অনুপম ঘোষ:

https://youtu.be/jrvf7-oGVGM

ঈদে সম্প্রীতির বার্তায় ইদ্রিশ আলী

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, 4জুন,কলকাতা : ঈদের শুভেচ্ছা এবং সম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা নিয়ে আজ এক সাংবাদিক সম্মেলন করে অল ইন্ডিয়া মাইনরিটি ফোরাম । ফোরামের চেয়ারম্যান তথা বিধায়ক ইদ্রিশ আলী বলেন, “আমাদের এই পশ্চিমবঙ্গ শান্তি ও ধর্মনিরপক্ষতার রাজ্য। এখানে বর্তমান সাম্প্রদায়িক বিভিন্ন কার্যকলাপ যা মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করছে তার ঘোর নিন্দা করি। ধর্ম এবং রাজনীতিকে একসাথে মিশিয়ে কলুষিত করার চেষ্টা চলছে।” এই পবিত্র ঈদের দিন যাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বজায় থাকে, সব ধর্মের মানুষকে একসাথে পবিত্র ঈদ উদযাপন করার আহ্বান জানান । তিনি আরও বলেন, “মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যেভাবে সকল ধর্মের মানুষকে সম্মান জানান, তার সেই পথ আমাদের অনুসরণ করা উচিত। ভরসা রাখুন মুখ্যমন্ত্রীর ওপর। তিনি বাংলার মান সম্মান আরও বৃদ্ধি করবেন “।
নাখোদা মসজিদের ইমাম মৌলনা ক্কারী সফিক কাশমী সম্মেলনে সভাপতিত্ব করে বলেন,” আমাদের দেশের রীতি হলো আমরা সকল ধর্মের মানুষ একসাথে সব ধর্মের অনুষ্ঠান উদযাপন করি ।”
সদ্য সমাপ্ত লোকসভায় ই ভি এম কারচুপি কথা তোলেন ইদ্রিশ বাবু। এদিন অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ড: অরুণজ্যোতি ভিক্ষু, স্বামী উত্তমানন্দ মহারাজ, ফাদার ফ্রান্সিস , কামরুদ্দীন মল্লিক প্রমুখ।

প্রত্যাশার আলোকে ABP



শুভাবরি ওয়েবডেস্ক,24মে ,কলকাতা: দেশের অখণ্ডতা ,ঐক্য ,সম্প্রীতি এবং সুস্থ সচ্ছল জীবনের লক্ষ্যে এবার ঝকঝক এবং ঐক্যবদ্ধ কিছু মানুষ । কলকাতা প্রেস ক্লাবে ‘অখিল ভারতীয় পরিবার ‘ এর বৃহৎ এক ছাতার নিচে সংগঠনের অতীত ও ভবিষ্যত নিয়ে এই প্রথম দেশের অন্য 14টি রাজ্যেও সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন ।


সংগঠনের রাজ্য সভাপতি বলেন 2006থেকে তারা সুনেতা গঠন করতে দিল্লিতে একটি প্রতিষ্ঠান চালু করেছিলন Institute of Political Leadership . তার দাবী দেশের বহু নামি নেতা ছাড়াও প্রায় আট হাজার নাগরিক এই প্রশিক্ষণ নিয়েছেন । সংগঠনের রাজ্য সংযোজক শেখর নাথ ঘোষ বলেন 2024নির্বাচনে তারা নতুন রাজনৈতিক দল তৈরি করতে চলেছেন । অবশ্য 17তম লোকসভার নির্বাচিত সদস্যদের কাজ কর্মের প্রতিও তারা নজর রাখবেন ও প্রয়োজনে সাহায্যও করবেন। এক নতুন মানসিকতা নিয়ে তিনি বললেন , আমাদের সদস্যরা নামের পাশে ‘ভারতীয় ‘ লিখে থাকে যাতে আগামীতে অখণ্ড ভারতের পরিচয় বহন করবে। এদিন উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখলেন কৃষ্ণেন্দু চ্যাটার্জি, ভায়েস প্রেসিডেন্ট সুনিল সিং, নীলম প্রমুখ।

উলটপুরান…

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ১৩ এপ্রিল, কলকাতাঃ যাদের জন্য উদ্বাস্তুদের কপালে চিন্তার ভাঁজ ছিল, সে বিজেপিকেই এবার নির্বাচনে সমর্থন দিতে চলেছে নিখিল ভারত বাঙালী উদ্বাস্তু সমন্বয় সমিতি। হ্যাঁ ভাবতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি।
সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ডাঃ সুবোধ বিশ্বাস আজ সাংবাদিক সম্মেলনে একথাই বললেন । উদাহরন দিয়ে উনি বলেন, “ ৮ বছর বয়সে কল্পনা বিশ্বাস কে ক্যাম্পে রাখা হয়েছিল। আজ তার বয়স ১৯ বছর । সে জানে না তার ভবিষ্যৎ কি? – এভাবেই উদ্বাস্তুরা আজ বিপদের মুখে। অনুপ্রবেশকারী ও শরণার্থীর পার্থক্য ভুললে চলবে না । মনে রাখতে হবে ২৪% মুসলমানের জন্য ২৬% জমি চাওয়া হয়েছিল দেশ ভাগের সময়। ধর্মীয় কারনে শরণ নেওয়া হিন্দুদের একাংশের নাগরিকত্ব দিতে হবে । সব রাজনৈতিক দল এন আর সি –র বিরোধিতা করলেও শুধুমাত্র বিজেপিই তাদের ইস্তেহারে উদ্বাস্তুদের প্রতি সহানুভূতি দেখিয়েছে”। তাই তাদের ১৭ টি রাজ্য শাখা আগামী নির্বাচনে বিজেপিকে সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ৮/১/১৯ এ আনা উদ্বাস্তু বিলটিও উদ্বাস্তুদের পক্ষে বলেই তার দাবী। তাই উস্বাস্তু ভোট নিয়ে বিজেপির হাই কমিশন নিশ্চিত থাকতেই পারে।

BJMTUC তে যোগদান


শুভাবরি ওয়েবডেস্ক ,9এপ্রিল,কলকাতা: আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে পূর্ব রেল ও পোর্ট ট্রাস্টএর বেশ কিছু শ্রমিক তাদের পুরনো সংগঠন ছেড়ে BJMTUC তে যোগদান করেন। আজ কলকাতা প্রেস ক্লাবে সংগঠনের রাজ্য সভাপতি সাংসদ জর্জ বেকার তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সর্বভারতীয় সভাপতি মন্মথ নাথ বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক আলী আফজল চাঁদ ।

বাংলায় ভোট প্রচারে মোদী, শাহ

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, পলাশ পাত্র: আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের পাকাপাকি ভাবে নির্বাচনী প্রচারের জন্য আগামী ৩এপ্রিল রাজ্যে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। দলীয় সুএের খবর, রাজ্যের নির্বাচনী উওাপ বাড়াতে ব্রিগেডে সভা করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এছাড়াও গোটা এপ্রিল মাস ধরে রাজ্যে প্রায় চারটি সভা করবেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। সভাক্ষেএগুলো হল দক্ষিণ কলকাতা বা যাদবপুরে একটি, পশ্চিম মেদিনীপুরে একটি, উওর মালদা ও রায়গঞ্জ আসনে একটি করে সভা হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।
প্রধানমন্ত্রীর সভা সার্থক করতে এখন থেকেই প্রচারের কথা দলের কার্যকারী বৈঠকে জানিয়ে দিয়েছেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এছাড়াও রাজ্যে প্রধানমন্ত্রীর ব্রিগেডে সভার জন্য সেনার অনুমতি নিতে সোমবার রাজ্য বিজেপি সেনাকে চিঠি দেবে বলে জানানো হয়েছে।

বাংলার বাইরেও প্রার্থী তৃণমূলের

ছবি প্রতীকী

শুভাবরি ওয়েবডেস্ক, ১৩ মার্চ,পলাশ পাত্র , হুগলীঃ  এবারের লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থী ঘোষনা করে দিয়েছেন তৃণমূল নেএী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার তিনি বাংলার প্রার্থী তালিকার পাশাপাশি ভিন  পাঁচ রাজ্যে প্রার্থী দেওয়ার কথাও জানান।

জানা গিয়েছে ওড়িশার দুটি লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী দিচ্ছে তৃণমূল, ভূবনেশ্বরে শুভ্রাংশু শেখর পধী এবং ভদ্রকে অগ্নিচরন জেনা। উল্লেখ্য গত লোকসভায় অসমের সাতটি কেন্দ্রে প্রার্থী দিয়েছিলেন কিন্তু এবারে মাত্র  ছ’টি কেন্দ্রে প্রার্থী দিচ্ছেন তৃণমূল।

 গুয়াহাটি, শিলচর, ধুবড়ি, করিমগঞ্জ, কোকরাঝাড়  এবং বরপেটা । প্রার্থী হচ্ছেন চন্দন দাস,হিতব্রত রায়,    নজরুল ইসলাম চৌধুরী, কমলাকান্ত দইমারী, আশাহক আলি দেওয়ান এবং মনোজ কুমার শর্মা।

ঝাড়খণ্ডের রাঁচি,জামশেদপুর এবং রাজমহলে  প্রার্থী অঞ্জনা মাহাতো, মন্ডল হাঁসদা,এবং সঞ্জয় কুমার পান্ডে।

বিহারের মহারাজগঞ্জে সুনীল সিং এবং কিষাণগঞ্জে জাভেদ  ইসলাম খান।

আন্দামান ও নিকোবরে প্রার্থী হচ্ছেন অয়ন মন্ডল।

প্রশ্নের মুখে ৫৬ ভারতীয়ের ভবিয্যৎ

দেবাঞ্জন দাস :১২  জন বাঙালী ইরান থেকে উদ্ধার হবার পর সামনে আসলো ওমানের মাসকেটে আটক ৫৬ ভারতীয় শ্রমিকের আটকে পড়ার খবর। প্রবাসী কামগার পরিষদ এর কনভেনর এস পি তেওয়ারী আজ প্রেস ক্লাবে বলেন, সিমপ্লেক্স কং এবং সরকার এ বিষয়ে কোন সদর্থক ভূমিকা নিচ্ছেন না তাই আগামী ২০  নভেম্বর সিমপ্লেক্স কণ্পানির অফিসের সামনে অনশন কর্মসূচী পালন করবেন।